ডেনিস রিচি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডেনিস ম্যাকএলিস্টেয়ার রিচি
Dennis MacAlistair Ritchie.jpg
ডেনিস রিচি, ১৯৯৯
জন্ম (১৯৪১-০৯-০৯)সেপ্টেম্বর ৯, ১৯৪১
ব্রনস্সভিল, নিউইয়র্ক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
মৃত্যু অক্টোবর ১২, ২০১১(২০১১-১০-১২) (৭০ বছর)
বার্কলে হাইডস, নিউ জার্সিত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
কর্মক্ষেত্র কম্পিউটার বিজ্ঞান
প্রতিষ্ঠান লুসেন্ট প্রযুক্তি
বেল ল্যাব্‌স
প্রাক্তন ছাত্র হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়
পরিচিতির কারণ ALTRAN
বি
বিসিপিএল
সি
Multics
ইউনিক্স
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার টুরিং পুরস্কার ১৯৮৩
ন্যাশনাল মেডেল অব টেকনোলজি অ্যান্ড ইনোভেশন ১৯৯৮
কেন টমসনের সাথে ডেনিস রিচি (ডানে)

ডেনিস ম্যাকএলিস্টেয়ার রিচি (জন্ম সেপ্টেম্বর ৯, ১৯৪১ - মৃত্যু অক্টোবর ৮, ২০১১)[১][২][৩][৪] একজন মার্কিন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। নামের তিনটি অংশের আদ্যক্ষর নিয়ে তিনি dmr নামে পরিচিত ছিলেন। কম্পিউটার প্রোগ্রামিং‌-এর জনপ্রিয় সি প্রোগ্রামিং ভাষার স্রষ্টা হিসাবে তার খ্যাতি। এছাড়া অন্যান্য প্রোগ্রামিং ভাষা এবং ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেম তৈরিতেও তার অবদান রয়েছে। ১৯৮৩ সালে এসিএম থেকে তিনি টুরিং পুরস্কার, ইনস্টিটিউট অফ ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ার্স (আইইই) প্রবর্তিত আইইই রিসার্চ ডব্লিউ হামিং পদক লাভ করেন এবং ১৯৯৮ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিনটনের থেকে আমেরিকার জাতীয় প্রযুক্তি পদক (National Medal of Technology) গ্রহন করেন। ২০০৭ সালে অবসর গ্রহণের আগে তিনি লুসেন্ট টেকনোলজিস সিস্টেমের সফটওয়্যার গবেষণা বিভাগের প্রধান ছিলেন। বেল ল্যাব্‌স এ কর্মরত অবস্থায় তিনি সি ভাষাটি তৈরি করেন। এছাড়া তিনি কেন টমসনের সাথে ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেমের প্রাথমিক ডিজাইনে অংশ নেন।

ব্যক্তি জীবন[সম্পাদনা]

ব্রনস্সভিল, নিউইয়র্কে রিচির জন্ম। তার পিতা, এলিস্টেয়ার ই. রিচি বেল ল্যাবের একজন বিজ্ঞানী এবং সুইচিং সার্কিট তত্ত্বের বই "The Design of Switching Circuits"-এর সহ লেখক। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানফলিত গণিতে তিনি স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন এবং এরপর ১৯৬৭ সালে তিনি বেল ল্যাবে যোগ দেন। ১৯৬৮ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্যট্রিক সি ফিশারের তত্ত্বাবধায়নে পিএইচডি ডিগ্রী লাভ করেন।[৫]

Ritchie enjoying conversation in a chalet in the mountains surrounding Salt Lake City at the 1984 Usenix conference.

সি এবং ইউনিক্স[সম্পাদনা]

সি প্রোগ্রামিং ভাষার উদ্ভাবক এবং ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেমের শুরুর দিকের গুরুত্বপূর্ণ অবদানকারীদের অন্যতম ডেনিস রিচি। তবে, রিচির সবচেয়ে বেশি পরিচিতি সি প্রোগ্রামিং ভাষার ওপর রচিত প্রামান্য পুস্তক The C Programming Language –এর সহ লেখক হিসেবে। এই বই-এর লেখকদ্বয় কার্নিংহাম এবং রিচি তাদের নামের আদ্যাক্ষর K&R হিসেবেই বেশি পরিচিত।

সি প্রোগ্রামিং ভাষার উদ্ভাবন এবং কেন থম্পসনের সঙ্গে ইউনিক্সের উন্নয়নে তাঁর অবদান রিচিকে আধুনিক কম্পিউটার বিজ্ঞানের অগ্রনায়ক হিসেবে চিহ্নিত করেছে। এপ্লিকেশন ও অপারেটিং সিস্টেম এবং এমবেডেড সিস্টেম উন্নয়নে ব্যবহার হওয়ার পাশাপাশি সি প্রোগ্রামিং ভাষা অন্যান্য প্রোগ্রামিং ভাষাকেও প্রবলভাবে প্রভাবিত করেছে। একই ভাবে আধুনিক কম্পিউটিং-এর বিকাশে ইউনিক্স সিস্টেমের অবদান অস্বীকার্য।

সি প্রোগ্রামিং ভাষার উদ্ভাবন ও ইউনিক্সের উন্নয়নে অবদানের জন্য রিচি ১৯৮৮ সালে আমেরিকার ন্যাশনাল একাডেমি অব ইঞ্জিনিয়ারিং-এ নির্বাচিত হোন।[৬]

পুরস্কার[সম্পাদনা]

বিল ক্লিনটনের থেকে থমসন (বামে) এবং রিচি (মাঝে) আমেরিকার জাতীয় প্রযুক্তি পদক গ্রহ করছেন, সাল ১৯৯৯।

টুরিং পুরস্কার[সম্পাদনা]

১৯৮৩ সালে রিচি এবং থম্পসন যৌথভাবে টুরিং পুরস্কার লাভ করেন। তাদেরকে "প্রমানী অপারেটিং সিস্টেমের তত্ত্ব বিশেষ করে ইউনিক্সে তা প্রয়োগ করার কারণে" এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্তিতে রিচি “রিফ্লেকশন অন সফটওয়্যার রিসার্চ (Reflections on Software Research)” নামে বক্তৃতা দেন।[৭]

আইইই রিসার্চ ডব্লিউ হামিং পদক[সম্পাদনা]

সি প্রোগ্রামিং ভাষা ও ইউনিক্সে অবদানের জন্য ১৯৯০ সালে থম্পসন ও রিচি ইনস্টিটিউট অফ ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ার্স (আইইই) প্রবর্তিত আইইই রিসার্চ ডব্লিউ হামিং পদক লাভ করেন।[৮]

জাতীয় প্রযুক্তি পদক[সম্পাদনা]

খম্পসন ও রিচি ১৯৯৮ সালে আমেরিকার জাতীয় প্রযুক্তি পদকের (National Medal of Technology) জন্য নির্বাচিত হোন। ১৯৯৯ সালের ২১ এপ্রিল আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন তাদের হাতে পদক তুলে দেন। সি প্রোগ্রামিং ভাষা এবং উইনিক্স অপারেটিং সিস্টেম উদ্ভাবনের স্বীকৃতীস্বরূপ তাদের এই সম্মানে ভুষিত করা হয়। এই উদ্ভাবনের মাধ্যমে কম্পিউটার হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার, নেটওয়ার্কিং, এবং সিমুলেশন ইত্যাদি ক্ষেত্রসমূহে বিশেষ অগ্রগতি লাভ করা সম্ভব হয় এবং এর মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্ব দিতে থাকে।[৯][১০]

জাপান পুরস্কার[সম্পাদনা]

ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেম উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালনের জন্য ২০১১ সালে রিচি ও থম্পসন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে জাপান পুরস্কার লাভ করেন।[১১]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

ডেনিস রিচি ১২ অক্টোবর, ২০১১ তারিখে, ৭০ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। বার্কলে হার্ডস, নিউ জার্সিতে তার নিজ বাসভবনে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। এখানে তিনি একা বসবাস করতেন।[১] রব পিকে নামে তার সহকর্মী সর্বপ্রথম তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।[২][৩] কিন্তু তার মৃত্যুর সঠিক সময় বা কারণ কোনোটিই প্রকশ করা হয়নি।[১২] বিগত বেশ কয়েক বছর থেকেই তিনি প্রোস্টেট ক্যান্সার এবং হৃদরোগের চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।[১][২][১৩][১৪] স্টিভ জবসের থেকে এক সপ্তাহ পরে তিনি মৃত্যুবরণ করেন, এর ফলে তার মৃত্যুর সংবাদটি প্রচারমাধ্যমগুলোতে স্বল্প পরিসরে প্রচার পেয়েছে। [১৫][১৬]

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

উক্তি[সম্পাদনা]

  • "I am not now, nor have I ever been, a member of the demigodic party."[১৭]
  • "Usenet is a strange place."[১৮]
  • "UNIX is very simple, it just needs a genius to understand its simplicity."[১৯]
  • "C is quirky, flawed, and an enormous success."[২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ Lohr, Steve (October 12, 2011), "Dennis Ritchie, Programming Trailblazer, Dies at 70", The New York Times, সংগৃহীত October 13, 2011, "Dennis M. Ritchie, who helped shape the modern digital era by creating software tools that power things as diverse as search engines like Google and smartphones, was found dead on Wednesday at his home in Berkeley Heights, N.J. He was 70. Mr. Ritchie, who lived alone, was in frail health in recent years after treatment for prostate cancer and heart disease, said his brother Bill." 
  2. ২.০ ২.১ ২.২ "Unix creator Dennis Ritchie dies aged 70"। BBC News। 2011-10-13। সংগৃহীত 2011-10-14। "Pioneering computer scientist Dennis Ritchie has died after a long illness. ... The first news of Dr Ritchie's death came via Rob Pike, a former colleague who worked with him at Bell Labs. Mr Ritchie's passing was then confirmed in a statement from Alcatel Lucent which now owns Bell Labs." 
  3. ৩.০ ৩.১ Rob Pike (October 12, 2011), (untitled post to Google+), সংগৃহীত October 14, 2011, "I just heard that, after a long illness, Dennis Ritchie (dmr) died at home this weekend. I have no more information." 
  4. Campbell-Kelly, Martin (October 13, 2011), "Dennis Ritchie obituary", The Guardian, সংগৃহীত October 13, 2011, "Dennis MacAlistair Ritchie, computer scientist, born 9 September 1941; died 12 October 2011" 
  5. Dennis M. Ritchie, গণিত উদ্ভববিজ্ঞান প্রকল্পে
  6. National Academy of Engineering : Members Directory – Dr. Dennis M. Ritchie
  7. The ''Reflections on Software Research'' paper. (PDF) Retrieved on 2011-08-21.
  8. "IEEE Richard W. Hamming Medal Recipients"IEEE। সংগৃহীত মে ২৯, ২০১১ (2011-05-29) 
  9. Ritchie and Thompson [to] Get National Medal of Technology Bell Labs pre-announcement
  10. Ritchie and Thompson Receive National Medal of Technology from President Clinton Bell Labs press release
  11. Evangelista, Benny, "Ken Thompson, Dennis Ritchie win Japan Prize", San Francisco Chronicle, January 25, 2011
  12. Associated Press (October 13, 2011), "Summary Box: Dennis Ritchie, pioneer in computer programming at Bell Labs, dies at 70", The Washington Post, সংগৃহীত October 14, 2011, "NOT KNOWN: Alcatel-Lucent confirmed his death to The Associated Press but would not disclose the cause of death or when Ritchie died." 
  13. Gallagher, Sean (13 October 2011)। "Dennis Ritchie, Father of C and Co-Developer of Unix, Dies"। সংগৃহীত 13 October 2011 
  14. Binstock, Andrew। "Dennis Ritchie, in Memoriam"Dr. Dobb's Journal। Dr. Dobb's Journal। সংগৃহীত 14 October 2011 
  15. Humphrey, Michael (10/14/2011)। "The Inevitable Steve Jobs vs. Dennis Ritchie Discussion"Forbes। সংগৃহীত 14 October 2011 
  16. Mearian, Lucas (October 13, 2011)। "Dennis Ritchie and Steve Jobs -- quite the juxtaposition"Computer World। সংগৃহীত 14 October 2011 
  17. "Google Groups : net.unix-wizards"। 1984-03-13। 
  18. "Google Groups : comp.lang.c"। 2006-08-23। 
  19. "Brainy Quote.com" 
  20. "The Development of the C Language" 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]