ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্স, বা ডিজিটাল (ইলেকট্রনিক) বর্তনী, যা একটি ধারাবাহিক পরিসীমা পরিবর্তে অ্যানালগ স্তরের বিযুক্ত ব্যান্ড অনুযায়ী সংকেত প্রতিনিধিত্ব করে। একটি ব্যান্ডের মধ্যে সমস্ত স্তরে একই সংকেত অবস্থা প্রতিনিধিত্ব করে। অপেক্ষাকৃত উৎপাদনের সহনশীলতা কারণে অ্যানালগ সংকেত স্তরে ছোট পরিবর্তনে, সংকেত শিথিলতা বা পরাশ্রয়ী গোলমাল বিযুক্ত আচ্ছাদক অনুপস্থিত থাকে না, এবং এর ফলে সংকেত অবস্থা সংবেদনশীল বর্তনী দ্বারা উপেক্ষা করা হয়। ডিজিটাল শব্দের অর্থ যে সংকেত বা প্রতিকের দুটি নির্ধারিত স্তর থাকে। কোন অজানা অবস্থা থাকে না এবং যার স্তর দুটি সময়ের সাথে ধাপে ধাপে পরিবর্তীত হয় এবং ধাপ সমূহের মান নির্দিষ্ট থাকে। ইলেকট্রনিক্সের যে শাখায় সংখ্যা (ডিজিটাল), সংকেত এবং বিভিন্ন ডিজিটাল বর্তনীতে এর গঠন, কার্য-প্রণালী, ডিজাইল সম্পর্কে বিস্তারিত বিশ্লেষন ও আলোচনা করা হয় তাকে ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্স বলে। কম্পিউটারমোবাইল ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্সের একটি জনপ্রিয় উদাহরণ। ডিজিটাল বর্তনী তৈরী হয় লজিক গেট, মাল্টিপ্লেক্সের, ডেকোডার ইত্যাদি দিয়ে।

ডিজিটাল বর্তনী[সম্পাদনা]

ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্স হল ইলেকট্রনিক্সের এমন একটি শাখা যা বুলিয়ান যুক্তিবিজ্ঞান ব্যবহার করে এবং বৈদ্যুতিন যুক্তিবিজ্ঞান দ্বারা তৈরী ইলেকট্রনিক্স।

সুবিধা[সম্পাদনা]

ডিজিটাল সার্কিট একটি সুবিধা এনালগ সার্কিট তুলনায় উপস্থাপিত সংকেত ডিজিটালরূপে গোলমাল ছাড়া প্রেরণে করা যাবে।[১] উদাহরণস্বরূপ, একটি অবিচ্ছিন্ন অডিও সংকেত, 1s এবং 0s একটা ক্রম হিসাবে প্রেরিত সংকেতের ত্রুটির জন্য 1s এবং 0s এর মধ্যে সহজে ভূল/ত্রুটি সনাক্তকরণ করা যাবে। দুটি স্থর থাকায় সহজেই ভূল ত্রুটি নির্নয় করা যায়। সিগন্যাল প্রসেসিং এর জন্য ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি সহজলভ্য ও দামে সস্তা।

অসুবিধা[সম্পাদনা]

কিছু ক্ষেত্রে, ডিজিটাল সার্কিট একই কাজ করতে এনালগ সার্কিটের তুলনায় বেশী শক্তির ব্যবহার করে, এই সকল ক্ষেত্রে বেশী তাপ উৎপাদান হয় যা নিয়ন্ত্রনে সার্কিটের জটিলতা এবং ব্যয় বেড়ে যায় ডিজিটাল সার্কিট কখনও কখনও বিশেষ করে ছোট মাত্রায় ব্যবহার আরো ব্যয়বহুল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Paul Horowitz and Winfield Hill, The Art of Electronics 2nd Ed. Cambridge University Press, Cambridge, 1989 ISBN 0-521-37095-7 page 471

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]