টেডি বিয়ার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
১৯৫৪ সালের দিকের জার্মান টেডি বিয়ার।

টেডি বিয়ার ভালুকের আকার সম্বলিত এক ধরণের সফট টয়। ১৯০২ সালের দিকে জার্মানিতে প্রথমবারের মতো খেলনা ভালুক তৈরি করা হয়। মার্গারেট স্টিফ নামের একজন ব্যক্তি খেলনা ভালুক তৈরি করেন। মার্গারেটের তৈরি খেলনাগুলো ছিল তুলার তৈরি।[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯০২ সালে টেডি বিয়ার নামকরণের রাজনৈতিক কার্টুন।

থিয়েডর রুজভেল্টের ডাকনাম ছিল ‘টেডি’।[৩] মিসিসিপির জঙ্গলে একবার রুজভেল্ট ভালুক শিকার করতে গেলেন। কারণ প্রেসিডেন্ট থিয়েডর রুজভেল্ট শিকার করতে খুব পছন্দ করতেন। তিনি সারা দিন চেষ্টা করেও শিকারের জন্য কোনো ভালুক পেলেন না। সরকারি কয়েকজন কর্মকর্তা খয়েরি রঙের একটি ভালুক-শাবক ধরে নিয়ে এলেন যার উদ্দেশ্য ছিল রুজভেল্ট এটি শিকার করবেন। ভালুক-শাবকটি দেখে রুজভেল্ট ঘোষণা করলেন শাবকটিকে তিনি গুলি করবেন না। পরের দিন মার্কিন সংবাদপত্রে ছাপা হলো রুজভেল্টের এই মানবিকতার কাহিনি। শিকারে ব্যর্থ হয়েও সাধারণ মানুষের চোখে ‘বীর’ বনে যান থিয়েডর রুজভেল্ট।[২]

নামকরণ[সম্পাদনা]

টোকিয়োতে টেডি বিয়ার।

যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী এক রুশ নাগরিক—মরিস মিচটম রুজভেল্টের ভালুক-শাবকটির আদলে তৈরি করেন একটি সফট টয়। রুজভেল্টের অনুমতি নিয়েই এর নাম দেওয়া হয় ‘টেডি বিয়ার।’ [২]

গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. David Cannadine, A point of view - The Grownups with teddy bears, 1 February, 2013, (accessed 2013-02-01)
  2. ২.০ ২.১ ২.২ টেডি বিয়ার, নাইর ইকবাল, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০৩-০৫-২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  3. http://www.theodoreroosevelt.org/life/trrancher.htm