টিম কেহিল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
টিম কেহিল
টিম কেহিল
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম টিমোথি জোয়েল কেহিল
জন্ম ৬ই ডিসেম্বর, ১৯৭৯
জন্ম স্থান সিডনি, অস্ট্রেলিয়া
উচ্চতা ১.৭৮মি.
মাঠে অবস্থান আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব এভারটন
জার্সি নম্বর ১৭
তারূণ্যের কর্মজীবন
১৯৯৬ সিডনি ইউনাইটেড
বলিষ্ঠ কর্মজীবন*
বছর দল উপস্থিতি
(গোল)
১৯৯৭–২০০৪
২০০৪–
মিলওয়াল
এভার্টন
২১৭ (৫২)
৯৩ (২৮)
জাতীয় দল
২০০৪– আষ্ট্রেলিয়া ২৭ (১২)
* পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ১৬:৩৩, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৭ (UTC) তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ২২:২১, ২২ জুলাই ২০০৭ (UTC) তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

টিমোথি জোয়েল টিম কেহিল (ইংরেজি: Timothy Cahill) (জন্ম ৬ই ডিসেম্বর, ১৯৭৯) সিডনিতে জন্মগ্রহণকারী একজন অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলোয়াড়। [১] বর্তমানে তিনি ইংল্যান্ডের পেশাদার ফুটবল ক্লাব এভার্টনের হয়ে খেলছেন। ২০০৭ সালের ফিফা বিশ্বকাপে একজন অস্ট্রেলীয় হয়ে প্রথম গোল করার সুবাদে তিনি বিশ্বব্যপী পরিচিতি পান।একি সাথে তিনি এশিয়ান কাপে প্রথম অস্ট্রেলীয় গোলের মালিক। তার ছোট ভাই ক্রিস কেহিল সামোয়ান জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক।

শৈশব[সম্পাদনা]

টিম কেহিলের মা সামোয়ান এবং বাবা আইরিশ। ছোটবেলা থেকেই তিনি পরিবারের কাছ থেকে ফুটবল খেলোয়াড় হবার প্রেরণা পেয়েছিলেন। ছোটবেলায় তিনি বালমেইন পুলিস বয়েজ ক্লাব, ম্যারিকভিল রেড ডেভিলস সকার ক্লাব এর হয়ে খেলতেন।

মিলওয়াল[সম্পাদনা]

১৯৯৭ সালে কেহিল তার বাবা মার কাছে ফুটবল খেলোয়াড় হিসাবে পেশাদার জীবন শুরু করার জন্য ইংল্যান্ড যাবার অনুমতি চাইলেন। ১৯৯৭ সালে ইংল্যান্ড ভিত্তিক পেশাদার ফুটবল দল মিলওয়াল ফুটবল ক্লাব কেহিলকে সিডনি ইউনাইটেড থেকে বিনামূল্যে নিজেদের করে নেয়। মিলওয়ালের হয়ে মে ২২, ১৯৯৮ সালে কেহিলের অভিষেক ঘটে। ২০০৩- ২০০৪ মৌসুমে কেহিলের একক কৃতিত্বে মিলওয়াল তাদের ক্লাব ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এফএ কাপ ফাইনাল এবং উয়েফা কাপ খেলার সুযোগ লাভ করে। সেমিফাইনালে তার অবদান তাকে এনে দেয় এফএ কাপ 'প্লেয়ার অফ দ্য রাউন্ড' নির্বাচনের ১০০,০০০ ভোট।[২] মিলওয়ালের পক্ষে ২৪১ টি খেলায় কেহিলের গোল সংখ্যা ৫৮ টি। ২০০৪ -২০০৫ মৌসুমে প্রিমিয়ার লীগের দল এভার্টন ১.৫ মিলিয়ন পাঊন্ডের বিনিময়ে কেহিলকে দলে ভিড়ায়।[৩] এভার্টনের সাথে সাথে ক্রিস্টাল প্যালেসও তাকে আশা করে ছিল। কিন্তু ক্লাবটির সভাপতি সিমোন জর্ডান কাহিলকে বদলির জন্য অর্থ খরচ করতে অপারগতা জানান।

এভারটন[সম্পাদনা]

প্রিমিয়ার লীগের প্রথম বছরেই কেহিল এভার্টনের পক্ষে সর্বোচ্চ গোল করেন। ২০০৪-০৫ মৌসুম তিনি সবচেয়ে দর্শক প্রিয় খেলোয়াড় মনোনীত হন। পরবর্তী মৌসুমে এভার্টন কেহিলের বেতন বৃদ্ধির সাথে সাথে তাদের চুক্তি ৫ বছরের জন্য বর্ধিত করে।[৪] চুক্তি সম্পাদনের পর এক বার্তায় কেহিল বলেন "All I can say it is another dream come true, another five years at the club I love and at the one that gave me my chance."

ক্যারিয়ার পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

দলে কৃতিত্ব
ক্লাব মৌসুম লীগ এফএ কাপ লীগ কাপ ইউরোপ সর্বমোট
উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল উপস্থিতি গোল উপস্থিতি; গোল উপস্থিতি গোল
এভার্টন ফুটবল ক্লাব ০৭-০৮ ১১ ১৬ ১০
০৬-০৭ ১৮ ২১
০৫-০৬ ৩১ ১০ ৩৮ ১২
০৪-০৫ ৩৩ ১১ ৩৮ ১২
মোট ৯৩ ৩৩ ১১৩ ৪১
মিলওয়াল ফুটবল ক্লাব ০৩-০৪ ৪০ ৪৮ ১২
০২-০৩ ১১ ১১
০১-০২ ৪৩ ১৩ ৪৭ ১৩
০০-০১ ৪১ ৪৭ ১০
৯৯-০০ ৪৫ ১২ ৪৮ ১২
৯৮-৯৯ ৩৭ ৩৭
৯৭-৯৮
মোট ২১৮ ৫২ ১২ ২৩৯ ৫৬
ক্যারিয়ারে সর্বমোট ৩১১ ৮৫ ১৭ ১৬ ৩৫২ ৯৭

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]