জোভান্নি আন্তোনিও মাজিনি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জোভান্নি আন্তোনিও মাজিনি

জোভান্নি আন্তোনিও মাজিনি (ইতালীয় ভাষায়: Giovanni Antonio Magini) (১৩ই জুন, ১৫৫৫ - ১১ই ফেব্রুয়ারি, ১৬১৭) ছিলেন একজন ইতালীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানী, জ্যোতিষী, মানচিত্রাঙ্কনবিদ এবং গণিতজ্ঞ। তিনি বর্তমান ইতালির পাদোয়া শহরে জন্মগ্রহণ করেন এবং ইউনিভার্সিটি অফ বোলোনিয়া থেকে ১৫৭৯ সালে দর্শনে পড়াশোনা শেষ করেন। তার বাবার নাম পাসকুয়ালে মাজিনি যিনি পাদোয়ার নাগরিক ছিলেন। তিনি জ্যোতির্বিজ্ঞানে মনোনিবেশ করে ১৫৮২ সালে coelestium motuum নামক একটি এফিমেরিস রচনা শেষ করেন, পরের বছর এটি ইতালীয় ভাষায় অনুবাদ করেন।

১৫৮৮ সালে এনিয়াতো দান্তির মৃত্যুর পর গালিলেও গালিলেইকে বাদ দিয়ে তাকে বোলোনিয়ার গণিত বিভাগের প্রধান নিযুক্ত করা হয়েছিল। বোলোনিয়াতেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

মাজিনি ইতালির একটি পূণাঙ্গ মানচিত্র তৈরির দুঃসাহসিক অভিযানে নেমেছিলেন। উদ্দেশ্য ছিল এমন মানচিত্র নির্মাণের যাতে খুটিনাটি প্রতিটি অঞ্চলের নাম এবং সাথে ঐতিহাসিক মন্তব্য থাকবে। তার মৃত্যুর পর ১৬২০ সালে তার ছেলে অবশেষে মানচিত্রটি প্রকাশ করেন। মাজিনির জ্যোতির্বিজ্ঞানকে তার জ্যোতিষ শাস্ত্র থেকে আলাদা করার কোন উপায় নেই। বলা যায়, তার ক্যারিয়ারের মূল ভিত্তিই ছিল জ্যোতিষ শাস্ত্র। জ্যোতির্বিজ্ঞানের জন্য তার লেখালেখির গুরুত্ব এখন কেবলই ঐতিহাসিক, কারণ তিনি টলেমীয় জগতেই বিশ্বাস করতেন।

১৫৯২ সালে মাজিনি তাবুলা তেত্রাগোনিকা প্রকাশ করেন এবং ১৬০৬ সালে অতি সূক্ষ্ণ ত্রিকোণমিতিক তালিকা তৈরি করেন। ব্যবহারিক জ্যামিতিতে তার অনেক অবদান ছিল। যেমন, গোলকের জ্যামিতি ও ত্রিকোণমিতির ব্যবহারিক প্রয়োগের জন্য তিনি নিজে পরিমাপ যন্ত্র তৈরি করেছিলেন। এছাড়া দর্পণ নিয়ে কাজ করে অবতল গোলকীয় দর্পণের তত্ত্ব প্রকাশ করেছিলেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Magini, Giovanni Antonio, The Galileo Project