জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন
Jacobs University Logo.jpg
স্থাপিত ১৯৯৯
ধরন বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়
সভাপতি ডঃ হাইঞ্জ-অটো পাইগেন
অ্যাকাডেমিক স্টাফ ৩৭৬ জন গবেষক (এদের মধ্যে ১২২ জন অধ্যাপক).
প্রশাসন স্টাফ ১৩০
ছাত্র ১৩৭০ (২০১২/১৩ শিক্ষাবর্ষে)
অবস্থান ব্রেমেন,  জার্মানি
ক্যাম্পাস নগরএলাকা, ৮০ একর (০.৩ বর্গকিলোমিটার)
ওয়েবসাইট www.jacobs-university.de

জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন (ইংরেজি: Jacobs University Bremen) (পূর্বের ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন, আই ইউ বি) ব্রেমেন, জার্মানিতে অবস্থিত স্বাধীন, বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়। জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন একটি ইংরেজি মাধ্যম উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান। মার্কিন, ইংরেজজার্মান শিক্ষাপদ্ধতি দ্বারা অনুপ্রাণিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে "আন্তর্বিষয়ক" পরিমন্ডলে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষাপ্রদান করা হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন ক্যাম্পাস সেন্টার

১৯৯৯ সালে স্থাপিত ‌'ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন' ২০০৭ সালে নাম পরিবর্তন করে 'জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন' নামে পরিচিত হয়। ‌বিখ্যাত জনহিতৈ‌ষী 'ক্লা‌উস‌ জোহান জেকবস‌' এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে দেউলিয়া হবার হাত থেকে বাঁচান। সেই ঘটনার স্বীকৃতিস্বরূপ এই নাম পরিবর্তন।

প্রাথমিকভাবে, ব্রেমেন নগররাজ্যের সরকার, ব্রেমেন বিশ্ববিদ্যালয় ও রাইস বিশ্ববিদ্যালয়ের পারস্পরিক সহযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়টি তৈরী হয়।

২০০৬ সালের ১লা নভেম্বর বর্তমান সভাপতি জোয়াকিম ট্রয়েশ পরবর্তী ৫ বছর ধরে বার্ষিক ১৫ মিলিয়ন ইউরো অনুদান দেবার প্রতিশ্রুতি দেন। জেকবস ফাউন্ডেশন ২০১১ সালে ১২৫ মিলিয়ন ইউরো অনুদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। তবে এটি বিশ্ববিদ্যালয়টির কর্মকুশলতার উপর নির্ভর করবে।

জেকবস ইউনিভার্সিটি কর্মীদের পরিবারের খেয়াল রাখে। ২০০৫ সাল থেকে জেকবস ইউনিভার্সিটি হার্টি ফাউন্ডেশনের থেকে 'পরিবার বান্ধব কেন্দ্র' শংসা পেয়ে আসছে। Deutsche Welle জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেনকে কেন্দ্র করে "Leaders of Tomorrow" নামে একটি ৫ পর্বের ধারাবাহিক সম্প্রসারণ করে।

ছাত্র/ছাত্রী[সম্পাদনা]

বর্তমানে ১০২টি দেশের ১২৪৫ জন ছাত্র/ছাত্রী জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন এ স্নাতক, স্নাতকোত্তর স্তরে ও গবেষণায় নিয়োজিত আছেন। অন্যান্য জার্মান বিশ্ববিদ্যালয় এর তুলনায় জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন অনেক বেশি আন্তর্জাতিক।

বিদেশের বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে জেকবস ইউনিভার্সিটির ছাত্র আদানপ্রদান নীতি আছে। এদের মধ্যে রয়েছে স্পেনের 'ইনস্টিটুটো দে এমপ্রেসা', 'ই‌উনিভার্সিদাদ দে মার্সিয়া‌', আমেরিকার 'রাইস ইউনিভার্সিটি ', 'ওয়াসিংটন স্টেট ইউনিভার্সিটি', 'কার্নেগি মেলন ইউনিভার্সিটি', ফ্রান্সের 'সাঁয়েসেস পো', থাইল্যান্ডের 'থামাসাত বিশ্ববিদ্যালয়', ইতালির 'ইউনিভার্সিতা দেগলি স্তুদি দি ক্যাগ্লিয়ারি', 'ইউনিভার্সিতা দেগলি স্তুদি দি রোমা' লা সাপিয়েন্জা এবং স্কটল্যান্ডের 'আবেরদিন বিশ্ববিদ্যালয়'।

২০১০ সাল থেকে জেকবস ইউনিভার্সিটি একটি প্রাক-বিশ্ববিদ্যালয় পাঠক্রম শুরু করছে। DAAD এর অর্থসাহায্যে এই পাঠক্রমে মধ্যপ্রাচ্যের প্রায় ২০জন ছাত্র/ছাত্রীকে একবছরের জন্য ভিত্তিমূলক শিক্ষা দেওয়া হবে।

অনুমোদন[সম্পাদনা]

জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন স্থানীয়ভাবে ব্রেমেন-নগররাজ্য এবং রাষ্ট্রীয়ভাবে ফেডেরাল রিপাবলিক অফ জার্মানীর শিক্ষামন্ত্রক (Wissenschaftsrat) দ্বারা অনুমোদিত। স্নাতকস্তরের পাঠক্রম জার্মান উচ্চশিক্ষা অনুমোদনকারী সংস্থা ACQUIN দ্বারা অনুমোদিত।

ক্রমাঙ্ক[সম্পাদনা]

প্রথাগত জার্মান বিশ্ববিদ্যালয়গুলির তুলনায় জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন আকার ও বয়সে অনেক ছোটো। এখানে পড়ার বিষয়ের সংখ্যাও সীমিত। এই কারণে আন্তর্জাতিক ক্রমতালিকায় বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থান পায়নি। ২০০৯ সালের জার্মান CHE ক্রমতালিকায় জীববিদ্যা, রসায়ন, কম্পিউটার সায়েন্স, ভূবিদ্যা এবং গণিতে উচ্চ স্থান দখল করে। জীববিদ্যা ও ভূবিদ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়টি সর্বোচ্চ স্থান দখল করে। [১] ২০১০ সালে Die Zeit এর ক্রমতালিকায় এর স্থান জার্মানীর ৯টি প্রায়োগিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তুল্যমূল্য ছিল। শুধুমাত্র ৩য় পক্ষ দ্বারা বিনিয়োগের দিক থেকে জেকবস কিছুটা পিছিয়ে ছিল। গুগল কলেজ ক্রমতালিকায় জার্মানীতে এর স্থান ৮ম। [২]

এলাকা[সম্পাদনা]

জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন ক্যাম্পাস

ব্রেমেন গ্রোন অঞ্চলে প্রাক্তন রোল্যান্ড সেনাছাউনি এর জমিতে গড়ে ওঠা এই বিশ্ববিদ্যালয় মার্কিনব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মতই ক্যাম্পাসভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয়। বর্তমানে প্রায় ৩০ হেক্টর উদ্যানসম পরিবেশে এই ক্যাম্পাসে আছে ৪টি ছাত্রাবাস, অনেকগুলি পাঠভবন ও গবেষণাগার, প্রশাসনিক ভবন (প্রাক্তন সভাপতির নামে 'রাইমার লুস্ট হল'), তথ্যকেন্দ্র (গ্রন্থাগার IRC), অতিথিভবন এবং আরও অনেককিছু।

স্কুল[সম্পাদনা]

জেকবস ইউনিভার্সিটি ব্রেমেন এ ২টি স্কুল ও ১টি গবেষণাকেন্দ্র আছে। এগুলি হল:

  • বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিদ্যালয় (SES)
  • মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান বিদ্যালয় (SHSS)
  • Jacobs Center for Lifelong Learning and Institutional Development (JCLL)

স্নাতকস্তর[সম্পাদনা]

মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান বিদ্যালয় (SHSS) এ নিম্নলিখিত বিষয়গুলিতে ডিগ্রি প্রদান করা হয়ঃ

আন্তর্জাতিক লজিস্টিক ম্যানেজমেন্ট, ইন্টিগ্রেটেড সামাজিক এবং কগনিটিভ মনোবিজ্ঞান, ইন্টিগ্রেটেড সামাজিক বিজ্ঞান, আন্তর্সংস্কৃতিক যোগাযোগ এবং সম্পর্ক, আন্তর্জাতিক রাজনীতি এবং ইতিহাস, ইনটিগ্রেটেড কালচারাল স্টাডিজ, গ্লোবাল অর্থনীতি ও ব্যবস্থাপনা, ইন্টিগ্রেটেড পরিবেশবিদ্যা।

বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিদ্যালয় (SES) এ নিম্নলিখিত বিষয়গুলিতে ডিগ্রি প্রদান করা হয়ঃ

প্রায়োগিক গণিত, বায়োকেমিক্যাল এন্জিনিয়ারিং, জৈবরসায়ন ও সেল বায়োনজি, বায়োইনফর্ম্যাটিকস ও কম্পিউটেশনাল বায়োনজি, জীববিদ্যা ও স্নায়ুবিদ্যা, রসায়ন, ইলেক্ট্রিকাল ও কম্পিউটার এন্জিনিয়ারিং, ইলেক্ট্রিকাল এন্জিনিয়ারিং ও কম্পিউটার সায়েন্স, কম্পিউটার সায়েন্স, আর্থ ও স্পেস সায়েন্স, আন্তর্জাতিক লজিস্টিকস এন্জিনিয়ারিং (২০০৭ সাল থেকে), গণিত, পদার্থবিদ্যা।

স্নাতকোত্তর ও গবেষণা[সম্পাদনা]

মোলাইফ (MoLife/Molecular Life Sciences): পূর্বের BioRec (Biological Recognition) শাখাটির পরিবর্তে ২০০৮ সাল থেকে এই শাখাটি চালু হয়েছে। এর অন্তর্গত বিষয়গুলি হল - আনবিক প্রাণপদার্থবিদ্যা, গাণিতিক জীববিজ্ঞান, আনবিক জীবপ্রযুক্তি, আনবিক জীনতত্ত্ব এবং কোষীয় ও আনবিক জীববিজ্ঞান.

ন্যানোমোল (NanoMol/Nanomolecular Sciences): এতে মূলতঃ প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের উপর ভিত্তি করে ন্যানোপ্রযুক্তির শিক্ষা দেওয়া হয়.

আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান বছর অনুষ্ঠান[সম্পাদনা]

জেকবস ইউনিভার্সিটি একটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান বছর অনুষ্ঠান আয়োজন করে যেখানে স্কুলঊত্তীর্ণদের দরকারি শিক্ষামূলক দক্ষতার পাঠ দেওয়া হয়। যেমন, ইংরাজী মাধ্যম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য দরকারি কুশলতার পাঠ, ইংরাজী ভাষাশিক্ষা, বিস্তারিত শিক্ষার অভ্যাস গঠন ইত্যাদি। এছাড়া, বিবিধ মৌলিক বিষয়, যেমন অর্থশাস্ত্র, সাধারণ বিজ্ঞান, প্রযুক্তিবিদ্যাতে পাঠ দেওয়া হয়। এই পাঠের সফল সমাপনে জেকবস ইউনিভার্সিটিতে স্নাতকস্তরে পঠনপাঠনের সুযোগ মেলে।

পেশাদারী শিক্ষা[সম্পাদনা]

বর্তমানে, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান বিদ্যালয় (SHSS) একটি এক্সিকিউটিভ MBA পাঠক্রম চালু করেছেঃ Executive MBA in European Utility Management (EUM)

ছাত্রাবাস[সম্পাদনা]

জেকবস ইউনিভার্সিটিতে ৪টি ছাত্রাবাস আছে। এখানে ছাত্রাবাসগুলি 'কলেজ' নামে পরিচিত। এগুলি হলঃ 'আলফ্রেড ক্রুপ কলেজ', 'মার্কাটর কলেজ', 'কলেজ ৩' এবং 'নর্ডমেটাল কলেজ'। এগুলি প্রধানত স্নাতকস্তরের পড়ুয়াদের জন্য হলেও সীমিত সংখ্যক আসন স্নাতকোত্তর মানের পড়ুয়াদের জন্য সংরক্ষিত থাকে। প্রতি কলেজে ১জন 'কলেজ মাস্টার' সবকিছু নিয়ন্ত্রন করেন। তাঁর অধীনে কয়েকজন 'রেসিডেন্ট অ্যাসোসিয়েট' বা RA (সাধারণতঃ গবেষকরা RA হন) ছাত্রদের সবরকম স্বাচ্ছন্দ্যের খেয়াল রাখেন। প্রতি কলেজে নিজস্ব রান্নাঘর, খেলার ঘর, সর্বসময়ের কর্মী রয়েছে। এছাড়াও ক্যাম্পাসের বাইরে ৪টি ছাত্রাবাস আছে। এগুলির নাম 'ব্লু হাউস', 'ইয়েলো হাউস', 'গ্রিন হাউস' ও 'রেড হাউস'। এগুলির সুযোগসুবিধাও কলেজগুলির মতই।

ছাত্র ও কর্মীদের জন্য সুবিধাসমূহ[সম্পাদনা]

ছাত্র ও কর্মীদের সুবিধার জন্য ১টি ব্যয়ামাগার, ২টি ক্রীড়াগার ও খেলার মাঠ, ১টি প্রেক্ষাঘর, ১টি পানশালা ও ১টি নিবেদিত student facility building (Student Activity Center) রয়েছে, যেখানে আছে ১টি রাত্রিকালীন দোকান, সর্বধর্ম উপাসনাগার, ১টি কাফে, অনেকগুলি ক্লাব এমনকি বাচ্চাদের স্কুল। বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অনেকগুলি আলোচনাকক্ষ, শ্রেণীকক্ষ ও গবেষণাগার রয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]


বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]