জামের মিনার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

স্থানাঙ্ক: ৩৪°২৩′৪৮″ উত্তর ৬৪°৩০′৫৮″ পূর্ব / ৩৪.৩৯৬৬৭° উত্তর ৬৪.৫১৬১১° পূর্ব / 34.39667; 64.51611

ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান
জামের মিনার ও পুরাতাত্ত্বিক ধ্বংসাবশেষ
বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী তালিকায় উল্লিখিত নাম
Minaret of jam 2009 ghor.jpg
ধরণ সংস্কৃতি
শ্রেণী ii, iii, iv
তথ্যসূত্র ২১১
ইউনেস্কো অঞ্চল Asia-Pacific
লিপির ইতিহাস
লিপি ২০০২ (২৬তম Session)
বিপন্ন ২০০২-

জামের মিনার পূর্ব আফগানিস্তানে অবস্থিত ইউনেস্কো কর্তৃক ঘোষিত একটি বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান। এটি হারি নদীর তীরে ঘোর রাজ্যের সাহরাক জেলায় অবস্থিত। ২৪০০ মিটার পর্যন্ত উচু পাহার বেস্টিত ৬৫ মিটার উচু এই মিনার, সম্পূর্ণ পোড়া মাটির ইট দিয়ে ১১৯০ সালে নির্মিত হয়েছে। মিনারটি তার জটিল ইট, আস্তর এবং পালিশ করা টালি সজ্জার জন্য প্রসিদ্ধা, যার মধ্যে বিভিন্ন ক্যালিগ্রাফি যেমন কুফিক, নাস্খ, বিভিন্ন জ্যামিতিক আকার এবং কুরআনের (যিশুর মাতা মরিয়মের সম্পর্কিত) আয়াত খোদাই করা রয়েছে।

গ্যালারি[সম্পাদনা]

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Dan Cruickshank (ed.), Sir Banister Fletcher's A History of Architecture, Twentieth edition, Architectural Press 1996, ISBN 0-7506-2267-9
  • Herberg, W. with D. Davary, 1976. Topographische Feldarbeiten in Ghor: Bericht über Forschungen zum Problem Jam-Ferozkoh. Afghanistan Journal 3/2, 57-69.
  • Maricq, A. & G. Wiet, 1959. Le Minaret de Djam: la découverte de la capitale des Sultans Ghurides (XIIe-XIIIe siècles). (Mémoires de la Délégation archéologique française en Afghanistan 16). Paris.
  • Sourdel-Thomine, J., 2004. Le minaret Ghouride de Jam. Un chef d'oeuvre du XIIe siècle. Paris: Memoire de l'Academie des Inscriptions et Belles Lettres.
  • Stewart, Rory. 2006. The Places In Between. Harvest Books. ISBN 0-15-603156-6.
  • Thomas, David, 2004. Looting, heritage management and archaeological strategies at Jam, Afghanistan
  • Thomas, D.C., G. Pastori & I. Cucco, 2004. “Excavations at Jam, Afghanistan.” East and West 54 (Nos. 1-4) pp. 87–119.
  • Thomas, D.C., G. Pastori & I. Cucco, 2005. The Minaret of Jam Archaeological Project at Antiquity
  • Thomas, D.C., & A. Gascoigne, in press. Recent Archaeological Investigations of Looting at Jam, Ghur Province, in J. van Krieken (ed.) Afghanistan’s Cultural Heritage: its Fall and Survival. Leiden: E.J. Brill.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]