জসীমউদ্দীন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জসীমউদ্দীন
Jasimuddin.jpg
পল্লী কবি জসীমউদ্দীন
জীবিকা কবি
জাতীয়তা বাংলাদেশী
জাতি বাঙালি
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
ধরণ পল্লী কবি
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার একুশে পদক, স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার


জসীমউদ্দীন (জানুয়ারি ১, ১৯০৩ - মার্চ ১৩, ১৯৭৬) একজন বিখ্যাত বাঙালি কবি। তিনি বাংলাদেশে 'পল্লী কবি' হিসেবে পরিচিত। তাঁর লেখা কবর কবিতাটি বাংলা সাহিত্যে এক অবিস্মরণীয় অবদান। পুরো নাম জসীমউদ্দীন মোল্লা হলেও তিনি জসীমউদ্দীন নামেই পরিচিত। নকশী কাঁথার মাঠ কবির শ্রেষ্ট রচনা যা বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি ১৯০৩ সনের পহেলা জানুয়ারি ফরিদপুর জেলার তাম্বুলখানা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার বাড়ি ছিলো একই জেলার গোবিন্দপুর গ্রামে। বাবার নাম আনসার উদ্দিন মোল্লা। তিনি পেশায় একজন স্কুল শিক্ষক ছিলেন। মা আমিনা খাতুন ওরফে রাঙাছুট। জসীমউদ্দীন ফরিদপুর ওয়েলফেয়ার স্কুল, ও পরবর্তীতে ফরিদপুর জেলা স্কুল থেকে পড়ালেখা করেন। এখান থেকে তিনি তার প্রবেশিকা পরীক্ষায় ১৯২১ সনে উত্তীর্ন হন। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি. এ. এবং এম. এ. শেষ করেন যথাক্রমে ১৯২৯ এবং ১৯৩১ সনে। ১৯৩৩ সনে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. দীনেশ চন্দ্র সেনের অধীনে রামতনু লাহিড়ী গবেষণা সহকারী পদে যোগদেন। এরপর ১৯৩৮ সনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগের প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন। ১৯৬৯ সনে রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কবিকে সম্মান সূচক ডি লিট উপাধিতে ভূষিত করেন। তিনি ১৩ মার্চ ১৯৭৬ সনে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। পরে তাকে তাঁর নিজ গ্রাম গোবিন্দপুরে দাফন করা হয়।

গ্রন্থাবলী[সম্পাদনা]

কাব্যগ্রন্থ

নাটক

আত্মকথা

উপন্যাস

ভ্রমণ কাহিনী

সঙ্গীত

  • জারি গান (১৯৬৮)
  • মুর্শিদী গান (১৯৭৭)

অন্যান্য

  • বাঙালির হাসির গল্প
  • ডালিমকুমার (১৯৮৬)

পুরস্কার[সম্পাদনা]

  • প্রেসিডেন্টস এওয়ার্ড ফর প্রাইড অফ পারফরমেন্স ১৯৫৮
  • একুশে পদক ১৯৭৬
  • স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার ১৯৭৮ (মরণোত্তর)
  • ১৯৭৪ সনে তিনি বাংলা একাডেমী পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করেন।
  • রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি. লিট ডিগ্রি (১৯৬৯)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]