ছৌ নাচ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ছৌ নাচ

ছৌ নাচ একপ্রকার ভারতীয় আদিবাসী যুদ্ধনৃত্য। এই নাচ ভারতীয় রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খণ্ডওড়িশায় জনপ্রিয়। কথিত আছে, ছৌ নাচের আদি উৎপত্তি স্থল ওড়িশার সাবেক দেশীয় রাজ্য ময়ূরভঞ্জ। উৎপত্তি ও বিকাশের স্থল অনুযায়ী ছৌ নাচের তিনটি উপবর্গ রয়েছে। যথা– সরাইকেল্লা ছৌ, ময়ূরভঞ্জ ছৌ ও পুরুলিয়া ছৌ।[১]:১০৯

সরাইকেল্লা ছৌ-এর উৎপত্তি অধুনা ঝাড়খণ্ড রাজ্যের সরাইকেল্লা খরসাওয়াঁ জেলার সদর সরাইকেল্লায়। পুরুলিয়া ছৌ-এর উৎপত্তিস্থল পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া জেলা এবং ময়ূরভঞ্জ ছৌ-এর উৎপত্তিস্থল ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলা। এই তিনটি উপবর্গের মধ্যে প্রধান পার্থক্যটি দেখা যায় মুখোশের ব্যবহারে। সরাইকেল্লা ও পুরুলিয়া ছৌ-তে মুখোশ ব্যবহৃত হলেও, ময়ূরভঞ্জ ছৌ-তে হয় না।[২][১]:১১০

নামকরণ ও ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

পুরুলিয়ায় ছৌ নাচের আসর

এই নাচের নামকরণ নিয়েও বিতর্ক রয়েছে। ডঃ আশুতোষ ভট্টাচার্যের মতে এই নাচের নাম ছৌ, ডঃ সুধীর করণের মতে ছো, বিভূতিভূষণ দাশগুপ্তের মতে ছ। ডঃ সুকুমার সেনের মতে শৌভিক বা মুখোশ থেকে নাচটির নামকরণ ছৌ হয়েছে। কুর্মালী ও ওড়িয়া ভাষায় ছুয়া বা ছেলে থেকে এই নাচের নামকরণ হয়েছে বলে অনেকে মনে করেন, কারণ ছৌ প্রধানতঃ ছেলেদের নাচ। ডঃ সুধীর করণের মতে ছু-অ শব্দের অর্থ ছলনা ও সং।[৩]:৩০৯ কোনো কোনো আধুনিক গবেষক মনে করেন, ছৌ শব্দটি এসেছে সংস্কৃত ছায়া থেকে। কিন্তু সীতাকান্ত মহাপাত্র মনে করেন, এই শব্দটি ছাউনি শব্দটি থেকে এসেছে।[৪]

পুরুলিয়া ছৌ[সম্পাদনা]

ছৌ নাচে ব্যবহৃত মুখোশ ও বাদ্যযন্ত্র

পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া জেলা ও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঝাড়গ্রাম মহকুমায় প্রচলিত ছৌ নাচের ধারাটি পুরুলিয়া ছৌ নামে পরিচিত। এই ধারার স্বতন্ত্র কিছু বৈশিষ্ট্য আছে। পুরুলিয়া ছৌ-এর সৌন্দর্য ও পারিপাট্য এটিকে আন্তর্জাতিক খ্যাতি এনে দিয়েছে। ১৯৯৫ সালে নতুন দিল্লিতে আয়োজিত প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ট্যাবলোর থিমই ছিল ছৌ নাচ। ছৌ মূলত উৎসব নৃত্য। পূর্বে চৈত্র মাসের শেষদিকে চড়ক-গাজন উৎসব উপলক্ষ্যে ছৌ নাচের আসর বসত। তবে এখন সারা বছরই বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষ্যে ছৌ আসর বসে থাকে।[৫][৬]:৪৪০[৭]:২০৭,২০৮

ছৌ নাচ বিষয়গতভাবে মহাকাব্যিক। এই নাচে রামায়ণমহাভারতের বিভিন্ন উপাখ্যান অভিনয় করে দেখানো হয়। কখনও কখনও অন্যান্য পৌরাণিক কাহিনিও অভিনীত হয়। ছৌ নাচের মূল রস হল বীর ও রুদ্র। নাচের শেষে দুষ্টের দমন ও ধর্মের জয় দেখানো হয়। গ্রামাঞ্চলে এই নাচের আসর কোনো মঞ্চে হয় না; খোলা মাঠেই আসর বসে, লোকজন চারিদিকে জড়ো হয়ে নাচ দেখে। তবে শহরাঞ্চলে সাধারণত মঞ্চেই ছৌ নাচ দেখানো হয়।[৫] নাচের শুরু হয় ঢাকের বাদ্যের সঙ্গে। এরপর একজন গায়ক গণেশের বন্দনা করেন। গান শেষ হলে বাদ্যকারেরা বাজনা বাজাতে বাজাতে নাচের পরিবেশ সৃষ্টি করেন। প্রথমে গণেশের বেশধারী নর্তক নাচ শুরু করেন। তারপর অন্যান্য দেবতা, অসুর, পশু ও পাখির বেশধারী নর্তকেরা নাচের আসরে প্রবেশ করেন।[৫] প্রতিটি দৃশ্যের শুরুতে ঝুমুরিয়া গানের মাধ্যমে পালার বিষয়বস্তু বুঝিয়ে দেন।

ছৌ নাচে মুখে মুখোশ থাকার ফলে মুখের অভিব্যক্তি প্রতিফলিত হয় না বলে শিল্পী অঙ্গপ্রত্যঙ্গের কম্পন ও সঙ্কোচন - প্রসারণের মধ্য দিয়ে চরিত্রের অভিব্যক্তি প্রকাশ করে থাকেন। ডঃ আশুতোষ ভট্টাচার্য ছৌ নাচের অঙ্গসঞ্চালনকে মস্তক সঞ্চালন, স্কন্ধ সঞ্চালন, বক্ষ সঞ্চালন, উল্লম্ফন এবং পদক্ষেপ এই পাঁচ ভাগে বিভক্ত করেছেন। বাজনার তালে হাত ও পায়ের সঞ্চালনকে চাল বলা হয়ে থাকে। ছৌ নাচে দেবচাল, বীরচাল, রাক্ষসচাল, পশুচাল প্রভৃতি বিভিন্ন রকমের চাল রয়েছে। চালগুলি ডেগা, ফন্দি, উড়ামালট, উলফা, বাঁহি মলকা, মাটি দলখা প্রভৃতি বিভাগে বিভক্ত।[৩]

পুরুলিয়ার ছৌ নাচে বান্দোয়ান ও বাগমুন্ডির দুটি পৃথক ধারা লক্ষ্য করা যায়। বান্দোয়ানের নাচে পালাগুলি ভাব গম্ভীর এবং বাগমুন্ডির নাচে পালাগুলি হয় বীরত্ব ব্যঞ্জক। জেলায় ছৌ নাচের মূল পৃষ্ঠপোষক ছিলেন ভূমিজ মুন্ডারা। পরে এই নাচে মাহাতো সম্প্রদায়ের মানুষেরা নর্তক হিসেবে ও ডোম সম্প্রদায়ের মানুষেরা বাদক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। ছৌ নাচের মুখোশ তৈরী করেন পুরুলিয়া জেলার বাগমুন্ডি থানার চোড়দা গ্রামের চল্লিশটি সূত্রধর পরিবার। সাধারণতঃ মাটি, কাগজ, কাপড়ের সাহায্যে মুখোশ তৈরী করা হয়ে থাকে।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ Claus, Peter J.; Sarah Diamond, Margaret Ann Mills (2003)। South Asian folklore: an encyclopedia। Taylor & Francis। আইএসবিএন 0415939194  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  2. "Famous Folk Dance: "Chau""Purulia district official website। সংগৃহীত 2009-03-15 
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ তরুণদেব ভট্টাচার্য, পুরুলিয়া,ফার্মা কে এল প্রাইভেট লিমিটেড, ২৫৭-বি, বিপিন বিহারী গাঙ্গুলী স্ট্রিট, কলকাতা-১২, ২০০৯
  4. "The Chhau"। Seraikela-Kharsawan district official website। সংগৃহীত 2009-03-15 
  5. ৫.০ ৫.১ ৫.২ "West Bengal Chhau"। India Line Expeditions। সংগৃহীত 2008-03-02 
  6. Bhatt, S. C.; Gopal Bhargava (2006)। Land and people of Indian states and union territories। Gyan Publishing House। আইএসবিএন 8178353563  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  7. Barba, Eugenio; Nicola Savarese (1991)। A dictionary of theatre anthropology: the secret art of the performer। Routledge। আইএসবিএন 0415053080  |coauthors= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]