চলচ্চিত্রের ধরন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

চলচ্চিত্র তত্ত্বে ধরণ হল চলচ্চিত্রের শ্রেণীকরণের প্রথম এবং প্রধান উপায়। যে বিষয়বস্তুর প্রেক্ষিতে চলচ্চিত্রের বর্ণনাক্রম নির্ধারিত হয় সেই প্রক্ষিত দ্বারাই ধরণকে সংজ্ঞায়িত করা হয়। বিষয়বস্তু, পরিপ্রেক্ষিত, পটভূমি আর অবস্থানের উপর ভিত্তি করে যেকোন সাহিত্য মাধ্যমেরই ধরণ নির্দিষ্ট করা যায়। চলচ্চিত্রেরও এরকম কিছু ধরণ রয়েছে যাদেরকে ইংরেজিতে জেনার (genre) বলে। এই ধরণগুলো মূলত সাধারণীকরণের মাধ্যমে করা হয়। ধরণ দিয়ে একটি চলচ্চিত্রকে সম্পূর্ণ ব্যাখ্যা করা সম্ভব নয়। একটি চলচ্চিত্র আবার একাধিক ধরণের মধ্যে পড়তে পারে। জনপ্রিয় কিছু ধরণের মধ্যে রয়েছে হরর, রোমাঞ্চ, অ্যাকশন, থ্রিলার, ঐতিহাসিক, মহাকাব্যিক, রূপকথা, অপরাধ, কমেডি ইত্যাদি।

চলচ্চিত্র ধরণের শ্রেণীকরণ[সম্পাদনা]

সাধারণত তিন রকমভাবে চলচ্চিত্রের ধরণসমূহ ঠিক করা হয়: সেটিং, মুড এবং ফরম্যাট। চলচ্চিত্রের অবস্থান বা লোকেশন দ্বারা সেটিংকে বোঝানো হয়। পুরো চলচ্চিত্র জুড়ে যে আবেগকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে তার মাধ্যমে ভাবকে সংজ্ঞায়িত করা হয়। চলচ্চিত্রটি নির্দিষ্ট ধরণের প্রযুক্তি বা যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে তৈরি হতে পারে বা নির্দিষ্ট কোনভাবে উপস্থাপিত হতে পারে, একে বলে ফরম্যাট বা ম্যানার।

এখানে সুপরিচিত এবং জনপ্রিয় কিছু ধরণ উল্লেখ করা হল। এগুলো আবার উপধরণে বিভক্ত করা হয়। অথবা দুইটি ধরণ মিলে হাইব্রিড ধরণ তৈরি করতে পারে।

সেটিং[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]