গ্রেস হপার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অবসর গ্রহণের পূর্বলগ্নে গ্রেস হপার, ১৯৮৪ সাল

রিয়ার অ্যাডমিরাল গ্রেস মুরে হপার (বিবাহপূর্ব নাম গ্রেস ব্রিউস্টার মুরে) (ডিসেম্বর ৯, ১৯০৬ - জানুয়ারি ১, ১৯৯২) একজন মার্কিন কম্পিউটার বিজ্ঞানী ও গণিতবিদ। কম্পিউটার প্রযুক্তির প্রাথমিক পর্যায়ে অবদানের জন্য তিনি বিখ্যাত হয়ে আছেন। তিনি প্রথম কম্পাইলার ও কোবোল প্রোগ্রামিং ভাষা উদ্ভাবন করেন।

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

গ্রেস হপারের জন্ম নিউ ইয়র্ক শহরে, ১৯০৬ সালের ৯ই ডিসেম্বর তারিখে। তাঁর পিতামহ ছিলেন মার্কিন নৌবাহিনীর রিয়ার অ্যাডমিরাল, মাতামহ ছিলেন নিউ ইয়র্ক শহরের অভিজ্ঞ পুরকৌশলী। মাতামহের উৎসাহে গণিত ও জ্যামিতি বিষয়ে গ্রেসের আগ্রহ জন্মায়। ১৯২৪ সালে তিনি নিউ ইয়র্কের পৌকিপ্সিতে অবস্থিত ভাসার কলেজে ভর্তি হন। তাঁর প্রধান আকর্ষণ ছিলো গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, ও প্রকৌশল। এখান থেকে ১৯২৮ সালে স্নাতক ডিগ্রি লাভের পর তিনি ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন, এবং সেখান থেকে গণিত ও গাণিতিক পদার্থবিজ্ঞানে ১৯৩০ সালে মাস্টার্স, এবং ১৯৩৪ সালে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। তাঁর ডক্টরেট অভিসন্দর্ভের শিরোনাম ছিলো "A New Criterion for Reducibility of Algebraic Equations"।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৩১ সাল হতে গ্রেস হপার ভাসার কলেজে শিক্ষকতা শুরু করেন। সেখানে ধীরে ধীরে তিনি প্রভাষক, সহকারী অধ্যাপক, ও সহযোগী অধ্যাপকের পদে পদোন্নতি লাভ করেন। ১৯৪১ সালে তিনি ভাসার ফ্যাকাল্টি বৃত্তি লাভ করে নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের কুরান্ট ইন্সটিটিউটে এক বছরের জন্য গবেষণা করতে যান। এসময় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছিলো। ১৯৪৩ সালের ডিসেম্বর মাসে গ্রেস হপার মার্কিন নৌবাহিনীতে যোগ দেন, এবং ১৯৪৪ সালের জুন মাসে লেফটেন্যান্ট, জুনিয়র গ্রেড, হিসাবে কমিশন লাভ করেন।

এর পর পরই গ্রেস হপার হাওয়ার্ড আইকেনের সংস্পর্শে আসেন। আইকেন তখন মার্কিন নৌবাহিনীর জন্য মার্ক-১ নামের একটি কম্পিউটার তৈরি করছিলেন। হপার এই কম্পিউটারটির ম্যানুয়াল লিখেন। এর পর তিনি এটিকে প্রোগ্রামিং করার কাজ শুরু করেন।

গ্রেস হপারের নোটবুকে রক্ষিত মথ, যা থেকে কম্পিউটার বাগ শব্দটির উদ্ভব

যুদ্ধ শেষে গ্রেস হপার নৌবাহিনীর সক্রিয় দায়িত্ব হতে সরে আসেন, কিন্তু হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে হার্ভার্ড মার্ক ২ ও মার্ক ৩ যন্ত্রগণকের উপরে কাজ করেন। মার্ক-২ এর উপরে কাজ করার সময় তিনি একটি বিকল রিলে যন্ত্রাংশের মধ্যে একটি মথ (প্রজাপতি) খুঁজে পান, যা সেটিকে বিকল করে দিয়েছিলো। এই মথটির কথা হপার লগবুকে উল্লেখ করেন (মথটি সহ), এবং এই ঘটনা হতেই কম্পিউটারের সমস্যা বা ত্রুটিকে বাগ (Bug = পোকা) বলা হয়ে থাকে।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Log Book With Computer Bug"National Museum of American History। সংগৃহীত 2007-01-17