গোয়া গাজাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এলিফ্যান্ট গুহার প্রবেশদ্বার
স্নানাগার
স্নানাগারের প্রতিমা

গোয়া গাজাহ, বা এলিফ্যান্ট গুহা, ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে উবুদ এর নিকট অবস্থিত, যা নির্মাণ করা হয় ৯ম শতাব্দীতে। এটি উপাসনার স্থান হিসেবে ব্যবহৃত হয়।[১]

নির্মাণভূমির বর্ণনা[সম্পাদনা]

এই গুহার বাইরের অংশে বিভিন্ন ভয়ঙ্কর চেহারা বিশিষ্ট প্রাণী ও রাক্ষসের মূর্তি বিদ্যমান যা ঠিক গুহার প্রবেশদ্বারে ঢুকতে অবস্থিত। কোন এক সময়ে এখানকার প্রাথমিক প্রাণীর মূর্তি ছিল হাতীর, তাই একে ""এলিফ্যান্ট গুহা"" নামেও ডাকা হয়। এই স্থানটির নাম ১৩৬৫ সালে লিখিত জাভানিজ কবিতা ""দেসাওয়ারানা"" পাওয়া যায়। এখানে বিদ্যমান বৃহৎ স্নানাগারটিতে নির্মানের পর থেকে ১৯৫০ সাল পর্যন্ত কোন খননকাজ পরিচালনা করা হয়নি।[২] এটি অশুভ আত্মাকে তাড়ানোর উদ্দেশ্য প্রদর্শিত হয়।

বিশ্ব ঐতিহ্যের সম্মান লাভ[সম্পাদনা]

এই স্থানটি ১৯৯৫ সালের ১৯ অক্টোবর ইউনেস্কো সাংস্কৃতিক বিভাগে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করে।[৩]

বহিঃ সংযোগ[সম্পাদনা]

  • উইকিভ্রমণ থেকে Central Bali ভ্রমণ নির্দেশিকা

টীকা[সম্পাদনা]

  1. Davison, J. et al. (2003)
  2. Pringle, R. (2004) p 61
  3. Elephant Cave - UNESCO World Heritage Centre

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ৮°৩১′২৪.২০″ দক্ষিণ ১১৫°১৭′১০.৮৯″ পূর্ব / ৮.৫২৩৩৮৮৯° দক্ষিণ ১১৫.২৮৬৩৫৮৩° পূর্ব / -8.5233889; 115.2863583