প্রথম গোপাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(গোপাল (পাল রাজা) থেকে ঘুরে এসেছে)
গোপাল
পাল
রাজত্বকাল ৭৫০ - ৭৭০
পূর্বসূরি গুপ্ত সাম্রাজ্য
উত্তরসূরি ধর্মপাল

গোপাল (জন্ম: - ৭৭০ মৃত্যু) ছিলেন বাংলার পাল রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ৭৫০ থেকে ৭৭০ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত রাজত্ব করেন। পাল রাজাদের নামের শেষে "পাল" শব্দাংশটির অর্থ "রক্ষাকর্তা"। তাঁদের সঠিক জাতি-পরিচয় জানা যায় না।

অরাজকতা ও গৃহবিবাদ[সম্পাদনা]

তিব্বতী বৌদ্ধ পণ্ডিত তারানাথখালিমপুর তাম্রলিপির বয়ান অনুসারে, গৌড়রাজ শশাঙ্কের মৃত্যুর পর এক শতাব্দী কাল ছিল বাংলার ইতিহাসে ঘোর অরাজকতা ও গৃহবিবাদের যুগ। বাংলা ইতিহাসে এই যুগটি "মাৎস্যন্যায়" নামে পরিচিত। মৎস্য জগতে বড় মাছ যেমন ছোট মাছকে গিলে খায়, তেমনি বাংলায় এই সময় শক্তিমানেরা দুর্বলদের উপর নিরন্তর অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছিল। দেশের জনসাধারণের দুর্দশার অন্ত ছিল না। ব্যবসাবাণিজ্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল। রৌপ্যমুদ্রার আদানপ্রদান বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সর্বোপরি বাংলার প্রধান বন্দর তাম্রলিপ্ত ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছিল। বাংলার এই সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক বিশৃঙ্খলার হাত থেকে মুক্তি পেতে, ৭৫০ খ্রিস্টাব্দে 'প্রকৃতিপুঞ্জ' অর্থাৎ, বাংলার প্রধান নাগরিকবৃন্দ গোপাল নামে এক জনপ্রিয় সামন্ত নেতাকে বাংলার রাজপদে নির্বাচিত করেন।[১][২]

গোপালের জাতি-পরিচয় সঠিক জানা যায় না। গোপালের পুত্র ধর্মপালের রাজত্বের ৩৪তম বর্ষে রচিত খালিমপুর তাম্রলিপি থেকে জানা যায়, গোপাল ছিলেন বপ্যট নামে এক যোদ্ধার পুত্র এবং দয়িতবিষ্ণু নামে এক "সর্ববিদ্যাশুদ্ধ" পণ্ডিতের পৌত্র।")[৩][৪][৫] তারানাথের মতে, গোপাল ছিলেন গোঁড়া বৌদ্ধ এবং ওদন্তপুরী মহাবিহারের প্রতিষ্ঠাতা।[৬] পাল সভাকবি সন্ধ্যাকর নন্দী "রামচরিত" কাব্যে পাল রাজাদের "সমুদ্রকুলোদ্ভূত" বলেছেন। আবুল ফজল পাল রাজাদের কায়স্থ বলে বর্ণনা করেন। রামচরিতে বরেন্দ্রভূমি অর্থাৎ উত্তরবঙ্গকে পাল রাজাদের পিতৃভূমি ("জনকভূ") বলা হয়েছে।[৭]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

গোপালের রাজত্বকাল বা রাজ্যবিস্তার সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা যায় না। তবে এটুকু জানা যায় যে, তিনি সমগ্র বাংলা অধিকার করতে সক্ষম হয়েছিলেন। গোপাল ২০ বছর রাজত্ব করেন। তাঁর মৃত্যুর পর তাঁর পুত্র ধর্মপাল রাজা হন।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. History of Buddhism in India, Translation: A. Shiefner.
  2. The Age of Imperial Kanauj, History and Culture of Indian People, 1964, p 45, Dr R. C. Majumdar, Dr A. D. Pusalkar.
  3. AM Chowdhury, Dynastic History of Bengal, Dhaka, 1967
  4. Epigraphia Indica, Vol IV, p 243ff; Gaudalekhamala, p 9, A. K. Maitreya.
  5. Ancient India, 2003, p 648, Dr V. D. Mahajan
  6. History of Buddhism in India, Translation by A Shiefner
  7. Roy N. (1993). Bangalir Itihas: Adiparba, Dey's Publishing, Calcutta, ISBN 81-7079-270-3

সূত্র[সম্পাদনা]

  • Majumdar R.C. and A.D. Pusalkar. History and Culture of Indian People, Vol. IV: The Age of Imperial Kanauj, Bharatiya Vidya Bhavan, Bombay, 1964.
  • Ramacharita by Sandhyakar Nandi
  • Mahajan, V.D. (1960, Reprint 2007), Ancient India, S. Chand & Company, New Delhi, আইএসবিএন 81-219-0887-6 
  • Epigraphia Indica, XVIII
  • Epigraphia Indica, II
  • Indian Antiquary, XV
পূর্বসূরী
গুপ্ত সাম্রাজ্য
পাল সাম্রাজ্য
৭৫০-৭৭০ খ্রিস্টাব্দ


উত্তরসূরী
ধর্মপাল