খনিজ তেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

খনিজ তেল বা পেট্রোলিয়াম হচ্ছে প্রকৃতিতে প্রাপ্ত খয়েরি রঙের তৈলাক্ত দাহ্য পদার্থ। এর রাসায়নিক উপাদানের প্রধান উপাদানগুলো হলো কার্বন, অক্সিজেন ও হাইড্রোজেন। এদের মধ্যে কার্বন ও হাইড্রোজেন বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। মিথেন ও ন্যাপথেন এবং এ্যারোমেটিক ক্রমের তরল হাইড্রোকার্বনের রাসায়নিক মিশ্রণই হচ্ছে খনিজ তেল।

আপেক্ষিক গুরুত্ব[সম্পাদনা]

খনিজ তেলের আপেক্ষিক গুরুত্ব- ০.৮-০.৯

উপাদান[সম্পাদনা]

অপরিশোধিত তেলে যে সকল হাইড্রোকার্বন করেছে তা হলো এ্যালকাইন, সাইকো এ্যালকাইনস এবং বিভিন্ন ধরেনের অ্যারোমেটিক হাইড্রোকার্বন।

ওজন অনুয়ায়ি উপাদানসমূহ
উপাদান শতাংশ সীমা
কার্বন ৮৩ থেকে ৮৭%
হাইড্রোজেন ১০ থেকে ১৪%
নাইট্রোজেন ০.১ থেকে ২%
অক্সিজেন ০.১ থেকে ১.৫%
সালফার ০.৫ থেকে ৬%
ধাতু ১০০০ পিপিএম এর কম

অপরিশোধিত তেলে হাইড্রোকার্বনের চার ধরনের অনু পাওয়া যায়। বিভিন্ন অঞ্চলের তেলে এর কিছুটা তারতম্য হয়ে থাকে।

ওজন অনুয়ায়ি উপাদানসমূহ
হাইড্রোকার্বন গড় সীমা
প্যারাফিনসমূহ ৩০% ১৫ থেকে ৬০%
নাপথেনসমূহ ৪৯% ৩০ থেকে ৬০%
অ্যারোমেটিকs 15% ৩ থেকে ৩০%
অ্যাসফ্যাল্টইক সমূহ ৬% অবশিষ্ট

রপ্তানী[সম্পাদনা]

ক্রমানুসারে ২০০৬ সালের মোট রপ্তানীর হাজার বিবিএল/দিন|দি]] এবং হাজার এম/দি]]

# তেল রপ্তানীকারক দেশ (২০০৬) (১০বিবিএল/দি) (১০এম/দি)
সৌদি আরব (ওপেক) ৮,৬৫১ ১,৩৭৬
রাশিয়া ৬,৫৬৫ ১,০০৪
নরওয়ে ২,৫৪২ ৪০৪
ইরান (ওপেক) ২,৫১৯ ৪০১
সংযুক্ত আরব আমিরাত (ওপেক) ২,৫১৫ ৪০০
ভেনেজুয়েলা (ওপেক) ২,২০৩ ৩৫০
কুয়েত (ওপেক) ২,১৫০ ৩৪২
নাইজেরিয়া (ওপেক) ২,১৪৬ ৩৪১
আলজেরিয়া (ওপেক) ১,৮৪৭ ২৯৭
১০ মেক্সিকো ১,৬৭৬ ২৬৬
১১ লিবিয়া (ওপেক) ১,৫২৫ ২৪২
১২ ইরাক (ওপেক) ১,৪৩৮ ২৯২
১৩ এঙ্গোলা (ওপেক) ১,৩৬৩ ২১৭
১৪ কাজাকিস্তান ১,১১৪ ১৭৭
১৫ কানাডা ১,০৭১ ১৭০

উৎস:US Energy Information Administration[১]

  • বিবিএল: ব্যারেল ইউনিট, দি: দিন
  • এম:কিউবিক মিটার

উত্তোলনের ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৫৯ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্ণেল ডেক প্রথম যান্ত্রিক পদ্ধতিতে তেল উত্তোলন করেন। পেনসেলভেনিয়ার অন্তর্গত টিটুসভেলিতে প্রথম ২১ মিটার গভীর তেল কূপ খনন করা হয়।

জ্বালানী তেলের বড় উৎস হচ্ছে এ তেল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]