ক্রোমোজোম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ক্রোমোজোম(ইংরেজি: Chromosome) হচ্ছে বংশগতির প্রধান উপাদান।

ক্রোমোজোম[সম্পাদনা]

ক্রোমোজোম নিউক্লিয়াসের নিউক্লিওপ্লাজমে বিস্তৃত এবং সূত্রাকার ক্রোমাটিন দ্বারা গঠিত। বিজ্ঞানী Eduard Strasburger ১৮৭৫ সালে সর্বপ্রথম ক্রোমোজোম আবিষ্কার করেন[১]। প্রজাটির বৈশিষ্ট্যভেদে এর ডিপ্লয়েড সংখ্যা ২ থেকে ১৬০০ পর্যন্ত হতে পারে[২]। ডিপ্লয়েড হলো দুই সেট ক্রোমোজোম, যার একসেট পিতা থেকে আসে এবং আর একসেট মাতা থেকে আসে। একটি ক্রোমোজোম সাধারণত ৩.৫ থেকে ৩০.০ মাইক্রন দৈর্ঘ্যে ও ০.২ থেকে ২.০ মাইক্রন প্রস্থে্ হয়ে থাকে[৩] (১ মাইক্রন=০.০০১ মিলিমিটার)।

ক্রোমোজোমের কাজ[সম্পাদনা]

ক্রোমোজোমের কাজ হলো মাতাপিতা হতে জিন সন্তানসন্ততিতে বহন করে নিয়ে যাওয়া। মানুষের চোখের রং, চুলের প্রকৃতি, চামড়ার গঠন ইত্যাদি বৈশিষ্ট্য ক্রোমোজোম কর্তৃক বাহিত হয়ে বংশগতির ধারা অক্ষুন্ন রাখে। এ কারণে ক্রোমোজোমকে বংশগতির ভৌতভিত্তি (Physical basis of heredity) বলে আখ্যায়িত করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মাধ্যমিক জীববিজ্ঞান: জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড, ঢাকা কর্তৃক প্রকাশিত(নভেম্বর ২০১২);পৃষ্ঠা- ১৬৮
  2. মাধ্যমিক জীববিজ্ঞান: জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড, ঢাকা কর্তৃক প্রকাশিত(নভেম্বর ২০১২);পৃষ্ঠা- ১৬৮
  3. মাধ্যমিক জীববিজ্ঞান: জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড, ঢাকা কর্তৃক প্রকাশিত(নভেম্বর ২০১২);পৃষ্ঠা- ১৬৮