কুবার পেডি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কুবার পেডি শহর
ভূগর্বস্থ গির্জা

কুবার পেডি অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড থেকে ৮৪৬ কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের মরুভূমিতে অবস্থিত একটি ছোট শহর। কুবার পেডি শব্দ দুটি এসেছে স্থানীয় নাম কুপা পিটি থেকে যার বাংলা অর্থ সাদা মানুষের গর্ত।[১]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ি এই শহরের জনসংখ্যা ১৬৯৫ জন (৯৫৩ জন পুরুষ, ৭৪২ জন নারী এবং অন্যান্য ২৭৪ জন)।[২] এই শহরকে একসময় উপল পাথরের শহর বলা হত। বর্তমানে এই শহরের লোকজন মাটির তলায় বসবাস করে বলে একে ভূগর্বস্থ নগরীও বলা হয়। রেস্তোরাঁ, বইয়ের দোকান, গির্জা, বিনোদন কেন্দ্র, ক্লাব, ব্যাংক, আর্ট গ্যালারি, মার্কেট কমপ্লেক্স সব কিছুই মাটির নিচে অবস্থিত।[৩] এটিই পৃথিবীর একমাত্র ভূগর্বস্থ নগরী।[৪] ১৯১৫ সালের ১ পেব্রুয়ারি এখানে প্রথম উপল পাথর পাওয়া যায় তখন থেকেই এখান থেকে পৃথিবীর অনেক জায়গায় খুব উন্নত মানের উপল পাঠানো হচ্ছে। এছাড়া বর্তমানে এটি পয়ৃটকদেরও অগ্রহরে কেন্দ্রবিন্দু। এখানে প্রায় ৬০ টি উপল তোলার খনি রয়েছে যা পৃথিবীর সর্ববৃহৎ উপল উত্তলোনের জায়গা হিসেবে পরিচিত।

খেলা[সম্পাদনা]

দিনের তাপমাত্রা অত্যাধিক হওয়ায় কুবার পেডির লোকজন রাতের বেলা গল্ফ খেলে থাকে।[৫] শহরে একটি ফুটবল ক্লাবও আছে।

তেলের মজুদ[সম্পাদনা]

ভূগর্বস্থ একটি অলংকারের দোকান

২০১৩ সালের এক গবেষনায় দেখা যায় কুবার পেডির পাশে আর্কারিনজা বাসিনে প্রচুর তেলের মজুদ আছে।[৬] গবেষনায় দেখা যায় এই মজুদ ৩.৫ এবং ২২৩ বিলিয়ন বেরেল তেল আছে যা অস্ট্রেলিয়াকে বিশ্বের অন্যতম তেল রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করবে।[৭][৮]

শহর নিয়ে চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

শহরের অন্যন্য বৈশিষ্ঠের জন্য এটি চলচ্চিত্র নির্মাতাদেরও আকৃষ্ঠ করেছে। ২০০৬ সালে এই শহরকে নিয়ে তৈরি হয় উপল ড্রিমস নামে একটি চলচ্চিত্র। এছাড়া ১৯৯১ সালের আনটিল দ্য এন্ড অফ দ্য ওর্য়াল্ড,[৯][১০] ১৯৯৪ সালের দি অ্যাডভান্ঞার অফ প্রিসকিল্লা কুইন অফ দ্য ডেজার্ট। ডিসকভারি চ্যানেল এ ২৯ সেপ্টেমবার, ২০১২ সালে এই শহর নিয়ে একটি পর্ব প্রচার করা হয়।

আবহাওয়া[সম্পাদনা]

কুবার পেডির অবস্থান মরূভুমির কাছে হওয়ায় দিনের বেলা এখানে তাপমাত্রা থাকে ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস আবার রাতে থাকে প্রচন্ড ঠান্ডা।

কুবার পেডি-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ °সে (°ফা) রেকর্ড ৪৮٫২
(১১৯)
৪৬٫৭
(১১৬)
৪৪٫৪
(১১২)
৪০٫০
(১০৪)
৩৩٫০
(৯১)
২৯٫৪
(৮৫)
৩২٫০
(৯০)
৩৫٫০
(৯৫)
৩৯٫১
(১০২)
৪৩٫৯
(১১১)
৪৫٫৬
(১১৪)
৪৭٫৮
(১১৮)
৪৮٫২
(১১৯)
সর্বোচ্চ °সে (°ফা) গড় ৩৬٫৪
(৯৮)
৩৫٫৭
(৯৬)
৩২٫৮
(৯১)
২৭٫৬
(৮২)
২২٫৩
(৭২)
১৮٫৮
(৬৬)
১৮٫৭
(৬৬)
২০٫৭
(৬৯)
২৪٫৫
(৭৬)
২৮٫৯
(৮৪)
৩২٫১
(৯০)
৩৪٫৬
(৯৪)
২৭٫৮
(৮২)
সর্বনিম্ন °সে (°ফা) গড় ২০٫৭
(৬৯)
২০٫৮
(৬৯)
১৮٫২
(৬৫)
১৪٫০
(৫৭)
১০٫১
(৫০)
৭٫২
(৪৫)
৬٫৩
(৪৩)
৭٫৪
(৪৫)
১০٫১
(৫০)
১৩٫৬
(৫৬)
১৬٫৬
(৬২)
১৯٫১
(৬৬)
১৩٫৭
(৫৭)
সর্বনিম্ন °সে (°ফা) রেকর্ড ৯٫৪
(৪৯)
১০٫৬
(৫১)
৯٫৬
(৪৯)
৫٫০
(৪১)
১٫৪
(৩৫)
০٫১
(৩২)
−২٫০
(২৮)
০٫৬
(৩৩)
১٫৭
(৩৫)
৩٫৯
(৩৯)
১৩٫f ১০٫০
(৫০)
−২٫০
(২৮)
গড় অধঃক্ষেপণ মিমি (ইঞ্চি) ১৭٫৪
(০٫৬৯)
২২٫৮
(০٫৯)
১২٫৯
(০٫৫১)
৬٫৫
(০٫২৬)
১৩٫১
(০٫৫২)
১৪٫৪
(০٫৫৭)
৭٫৮
(০٫৩১)
৯٫২
(০٫৩৬)
৮٫৪
(০٫৩৩)
১৪٫৯
(০٫৫৯)
১১٫৬
(০٫৪৬)
১৭٫৫
(০٫৬৯)
১৫৬٫৪
(৬٫১৬)
উৎস: Bureau of Meteorology (Australia)[১১]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিমিডিয়া কমন্সে Coober Pedy সম্পর্কিত মিডিয়া

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

২৯°০′৪০″ দক্ষিণ ১৩৪°৪৫′২০″ পূর্ব / ২৯.০১১১১° দক্ষিণ ১৩৪.৭৫৫৫৬° পূর্ব / -29.01111; 134.75556স্থানাঙ্ক: ২৯°০′৪০″ দক্ষিণ ১৩৪°৪৫′২০″ পূর্ব / ২৯.০১১১১° দক্ষিণ ১৩৪.৭৫৫৫৬° পূর্ব / -29.01111; 134.75556