কাহ্নপাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

চর্যাপদের কবিগণের মধ্যে সর্বাধিক পদরচয়িতার গৌরবের অধিকারী কাহ্ন পাদ। তাঁর তেরটি পদ চর্যাপদ গ্রন্থে গৃহীত হয়েছে। এই সংখ্যাধিক্যের পরিপ্রেক্ষিতে তাঁকে কবি ও সিদ্ধাচার্যদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ বলে অভিহিত করা যায়। কাহ্ন পাদ কৃষ্ণাপাদ ইত্যাদি নামেও তিনি পরিচিত। বিভিন্ন পদে কাহ্ন, কাহ্নূ, কাহ্নু, কাহ্ণ, কাহ্নি, কাহ্নিলা, কাহ্নিল্য প্রভৃতি ভণিতা লক্ষ করা যায়। খ্রিস্টিয় আষ্টম শতকে কানু পার আবির্ভাব হয়েছিল বলে ডঃ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ মনে করেন। কানু পার বাড়ি ছিল [উড়িষ্যায়, তিনি সোমপুর বিহারে বাস করতেন। তিনি দেব পালের রাজত্বকালে বর্তমান ছিলেন। তাঁর জীবৎকালের ঊর্ধ্বসীমা ৮৪০ খ্রিস্টাব্দ। তিনি বর্ণে ব্রাহ্মণ এবং ভিক্ষু ও সিদ্ধ। তিনি পন্ডিত-ভিক্ষু নামে খ্যাত ছিলেন। চর্যাপদ ছাড়াও তিনি অপভ্রংশ ভাষায় দোহাকোষ রচনা করেছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস, মাহবুবুল আলম।