এলিয়ানর ক্যাটন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এলিয়ানর (এলি) ক্যাটন
জন্ম ?, ১৯৮৫
লন্ডন, অন্টারিও, কানাডা
জীবিকা ঔপন্যাসিক, ছোট গল্প লেখিকা
জাতীয়তা নিউজিল্যান্ডীয়
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেন্টারবুরি বিশ্ববিদ্যালয়
উল্লেখযোগ্য রচনাসমূহ দ্য লুমিনারিজ,
দ্য রিহিয়ার্সাল
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার ম্যান বুকার পুরস্কার
২০১৩

এলিয়ানর ক্যাটন (ইংরেজি: Eleanor Catton; জন্ম: ১৯৮৫) কানাডার অন্টারিও প্রদেশের লন্ডন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী নিউজিল্যান্ডের বিশিষ্ট মহিলা লেখক। তিনি তার নিজস্ব দ্বিতীয় উপন্যাস দ্য লুমিনারিজের জন্য ২০১৩ সালের ম্যান বুকার পুরস্কার লাভ করেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ক্যাটনের বাবা নিউজিল্যান্ডীয় স্নাতকের ছাত্র হিসেবে ওয়েস্টার্ন অন্টারিও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসেবে কানাডায় ডক্টরেট অর্জনের জন্য পড়াশোনা করেন। সেখানেই ক্যাটনের জন্ম হয়। ছয় বছর বয়সে তার পরিবার নিউজিল্যান্ডে ফিরে আসেন[২] ও ক্রাইস্টচার্চে বড় হন ক্যাটন।[৩] অতঃপর বার্নসাইড হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেন। ক্যান্টারবুরি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ে পড়াশোনা করেন। ওয়েলিংটনের ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন।

আইওয়া রাইটার্স ওয়ার্কশপ কর্তৃক ২০০৮ সালে ফেলোশীপ লাভ করেন।[৪] ২০০৯ সালে সাহিত্যে বর্ষসেরা সোনালী তরুণী হিসেবে বিবেচিত হন।[৫] বর্তমানে তিনি অকল্যান্ডে বসবাস করছেন ও ম্যানুকাউ ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজিতে সৃষ্টিশীল লেখা বিষয়ে শিক্ষকতা করছেন।[৬]

সাহিত্য-কর্ম[সম্পাদনা]

স্নাতকোত্তর শ্রেণীর অভিসন্দর্ভ[৭] হিসেবে ২০০৮ সালে দ্য রিহিয়ার্সাল শিরোনামে তিনি তার প্রথম উপন্যাস রচনা করেন। এ উপন্যাসে শিক্ষক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছাত্রীর মধ্যকার সম্পর্ক ও প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে ব্যক্ত করা হয়েছে।

দ্বিতীয় উপন্যাস দ্য লুমিনারিজ ২০১৩ সালে প্রকাশিত হয়। ১৮৬৬ সালে নিউজিল্যান্ডের সোনার খনিকে কেন্দ্র করে রচনা করা হয়। এ উপন্যাসটি ২০১৩ সালের ম্যান বুকার পুরস্কারের সংক্ষিপ্ত তালিকায় স্থান পায় ও মাত্র ২৮ বছর বয়সে সর্বকনিষ্ঠ লেখক হিসেবে ক্যাটন বুকার পুরস্কার বিজয়ী হন।[৮][৯] এছাড়াও, ২৭ বছর বয়সে ম্যান বুকার পুরস্কারের সংক্ষিপ্ত তালিকায় স্থান পেয়েছিলেন তিনি।[৮]

৮৩২ পৃষ্ঠায় রচিত দ্য লুমিনারিজ বুকার পুরস্কারের ৪৫ বছরের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ সাহিত্য-কর্ম হিসেবে পুরস্কার জয় করে।[৯] বিচারকমণ্ডলীর সভাপতি রবার্ট ম্যাকফারল্যান মন্তব্য করেন যে, এ সাহিত্য-কর্মটি অতিশয় উজ্জ্বল কর্ম হিসেবে বিবেচিত। এটি প্রকৃতই দীপ্তময় কর্ম। এটি ব্যাপক এবং কোনরূপ বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়।[৯] ১৫ অক্টোবর, ২০১৩ তারিখে লন্ডনের গিল্ডহলে ডাচেস অব কর্নওয়ালের কাছ থেকে এলিয়ানর ক্যাটন পুরস্কার গ্রহণ করবেন।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Kellogg, Carolyn (October 15, 2013). "Eleanor Catton's 'The Luminaries' wins 2013 Man Booker Prize". Los Angeles Times. Retrieved October 15, 2013.
  2. Cochrane, Kira (7 September 2013)। "Eleanor Catton: 'I'm strongly influenced by box-set TV drama. At last the novel has found its screen equivalent' | Books | The Guardian"The Guardian। Guardian News and Media। সংগৃহীত 19 September 2013 
  3. A New Line on the Fading Age of Innocence, Sunday Herald feature, 18 July 2009.
  4. McEvoy, Mark (14 September 2013)। "Interview: Eleanor Catton"Brisbane TimesFairfax Media। সংগৃহীত 19 September 2013 
  5. McKay, Carla (21 July 2009)। "Eleanor Catton: The Rehearsal | Mail Online"Daily MailDMG Media। সংগৃহীত 19 September 2013 
  6. "Eleanor Catton's success is written in the stars"The HeraldNewsquest। 7 September 2013। সংগৃহীত 19 September 2013 
  7. Clarkson, Annie (4 August 2009)। "‘I am still astonished and a little bit suspicious that The Rehearsal has even been published’ – An Interview with Eleanor Catton | Bookmunch"Bookmunch। সংগৃহীত 19 September 2013 
  8. ৮.০ ৮.১ Morris, Linda (11 September 2013)। "Eleanor Catton youngest author ever shortlisted for Booker"The AgeFairfax Media। সংগৃহীত 19 September 2013 
  9. ৯.০ ৯.১ ৯.২ ৯.৩ Masters, Tim (15 October 2013)। "Man Booker Prize: Eleanor Catton becomes youngest winner with The Luminaries"BBC News। সংগৃহীত 15 October 2013 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

পুরস্কার
পূর্বসূরী
হিলারি ম্যান্টেল
ম্যান বুকার পুরস্কার‎ বিজয়ী
২০১৩


সাম্প্রতিক