উড়ো টিকটিকি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
উড়ো টিকটিকি
Preserved specimens cutted - Kunming Natural History Museum of Zoology - DSC02409.JPG
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Reptilia
বর্গ: Squamata
উপ-বর্গ: Iguania
পরিবার: Agamidae
গণ: Draco
প্রজাতি: D. maculatus
দ্বিপদী নাম
Draco maculatus
Cantor, 1847
Draco maculatus distribution.png
প্রতিশব্দ

Dracunculus maculatus Gray 1845
Draco divergens TAYLOR 1934
Draco haasei Boettger 1893

উড়ো টিকটিকি (বৈজ্ঞানিক নাম:Draco maculatus) যা চিত্রা উড়ন্ত টিকটিকি বা উড়ুক্কু গিরগিটি নামেও পরিচিত এক ধরনের টিকটিকি যা গাছ থেকে গাছে উড়ে যায়। এরা উড়ে উড়ে গাছ পরিবর্তন করে। [১]

আকার[সম্পাদনা]

উড়ো টিকটিকি গড় উচ্চতা সাধারণত ২১ সেন্টিমিটার। এদের লেজ ও দেহের দৈর্ঘ্যের পার্থক্য আছে। এদের লেজ ১৩ সেন্টিমিটারের মত এবং দেহ ৮ সেন্টিমিটারের মত হতে পারে বা তারতম্য হতে পারে। দেহের দুপাশে ডানা দেখতে পর্দার মত। ওড়ার সময় উড়ো টিকটিকির পর্দা পরিলক্ষিত হয়। দেহের উপরিভাগ বাদামি রঙের এবং তাতে গাঢ় ফোঁটা দেখা যায়। দেহের নিচের অংশের রং উপরিভাগ থেকে ভিন্ন কিছুটা ফ্যাকাশে ধরনের। পর্দার ওপরটা লাল, হলুদ বা সবুজ রঙের এবং নিচের অংশ হলুদ রঙের হয়ে থাকে। ডানাওলা পর্দার ওপর ও নিচের দিকে কালো ফোঁটা দেখা যায়। এদের গলার নিচে একজোড়া থলে দেখা যায়, যা উত্তেজিত হলে ফুলিয়ে থাকে। এদের থলের রং হলুদ তবে গোড়ার দিকে নীল ফোঁটা থাকতে পারে। পুরুষ টিকটিকির থলে স্ত্রী টিকটিকি থেকে সাধারণত বড় হয়। মার্চ মাস থেকে জুন মাস এদের প্রজননকাল।[২]

বিস্তার[সম্পাদনা]

উড়ো টিকটিকি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় পাওয়া যায়। বাংলাদেশ, ভারত, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, চীন, কম্বোডিয়ালাওসে এদের দেখা মেলে।

স্বভাব[সম্পাদনা]

উড়ো টিকটিকি গাছে বাস করে। এরা নীরব ও লাজুক প্রকৃতির। বড় গাছে অনেক সময় জোড়ায় দেখা যায়। দিনের বেলায় সক্রিয় থাকে। গলার থলে ফোলালে সহজে খুঁজে পাওয়া যায়। এরা দেহের রংকে পরিবেশের সঙ্গে মিশিয়ে ফেলতে পারে সহজেই তাই এদের সাধারণত চোখে পড়ে না। উড়ো টিকটিকি বিভিন্ন ধরনের পোকামাকড় খায়। এরা পিঁপড়া খেতে পছন্দ করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বিরল চিত্রা উড়ন্ত টিকটিকি, আ ন ম আমিনুর রহমান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  2. Boulenger, G. A. 1890. Fauna of British India. Reptilia and Batrachia.

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

  • Boettger,O. 1893 Ein neuer Drache (Draco) aus Siam. Zool. Anz. 16: 429-430
  • Boulenger, G.A. 1885 Catalogue of the Lizards in the British Museum (Nat. Hist.) I. Geckonidae, Eublepharidae, Uroplatidae, Pygopodidae, Agamidae. London: 450 pp.
  • Boulenger,G.A. 1900 On the reptiles, batrachians (and fishes) collected by the late Mr. John Whitehead in the interior of Hainan. Proc. Zool. Soc. London 1899: 956-959
  • Cantor. T. E. 1847 Catalogue of reptiles inhabiting the Malayan Peninsula and Islands. J Asiat. Soc., Bengal, Calcutta. 16 (2): 607 - 656, 897-952, 1026–1078
  • Gray, J. E. 1845 Catalogue of the specimens of lizards in the collection of the British Museum. Trustees of die British Museum/Edward Newman, London: xxvii + 289 pp.
  • Günther, A. 1861 Second list of Siamese reptiles. Ann. Mag. Nat. Hist. (3) 8: 266-268
  • McGuire, Jimmy A. & Heang, Kiew Bong 2001 Phylogenetic systematics of Southeast Asian flying lizards (Iguania: Agamidae: Draco) as inferred from mitochondrial DNA sequence data. Biological Journal of the Linnean Society 72: 203-229

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]