ইসমাইল ইবনে শরীফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইসমাইল ইবনে শরীফ
ইসমাইল ইবনে শরীফের পোর্ট্রেইট
মরক্কোর সম্রাট
সময়কাল ১৬৭২-১৭২৭
অভিষেক ১৬৭২
পূর্বসূরী আল-রশিদ

মৌলে ইসমাইল ইবনে শরীফ (ইংরেজি: Moulay Ismaïl Ibn Sharif) (আরবি: مولاي إسماعيل بن الشريف ابن النصر‎) (১৬৩৪? বা ১৬৪৫?-১৭২৭, রাজত্বকাল ১৬৭২-১৭২৭)[১] ছিলেন মরক্কোর অ্যালৌউত বংশের প্রথম দ্বিতীয় শাসক। অন্যান্য বংশের মতোই ইসমাইলও নিজেকে মুহাম্মাদের বংশধর হিসেবে দাবি করেছেন। তাঁর দাবি অনুসারে তিনি মুহাম্মাদের নাতি হাসান ইবনে আলির বংধর। এছাড়া ইসমাইলের নিজের দেশে তিনি ‘যুদ্ধবাজ রাজা’ নামে পরিচিত।

শাসন[সম্পাদনা]

ইসমাইল সিংহাসনের আরোহন করেন তাঁর সৎ ভাই আল-রশিদের মৃত্যুর পর। তিনি তাঁর ঘোড়া থেকে পড়ে মারা যান। ইসমাইলের অভিষেক ঘটে মাত্র ছাব্বিশ বছর বয়সে। তখন তার দেশ বিভিন্ন উপজাতির মধ্যে যুদ্ধ, অন্তর্কোন্দল, ও রাজত্বের দখল সংক্রান্ত প্রতিকূলতায় পর্যদুস্ত। তাঁর শাসন কাল ছিলো ১৬৭২ থেকে ১৭২৭ পর্যন্ত। ইসমাইলকে বলা হয় পৃথিবীর এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সন্তানের পিতা। তিনি ৫২৫ পুত্র ৩৪২ কন্যাসহ মোট ৮৬৭ জন সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন।[২] মেকেনেস নামের যে রাজধানী শহরটি তিনি তৈরি করেছিলেন, তাকে তার মাত্রাতিরিক্ত অপচয়ের কারণ মরক্কোর ভার্সেইলি বলে অভিহিত করা হতো। এই শহর তৈরিতে ব্যবহৃত কিছু পাথর প্রাচীন রোমান ধ্বংসাবশেষ থেকে লুট করে আনা হয়েছিলো।[৩] মৌলে ইসমাইলের সময়কালেই মরক্কোর রাজধানী শহর ফেজ থেকে মেকেনেসে স্থানান্তর করা হয়।

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Abun-Nasr, J.M., A History of the Maghrib in the Islamic Period, page 230. Cambridge University Press, 1987
  2. "Some magical Moroccan records"Guinness World Records। Guinness World Records Limited। March 3, 2008। সংগৃহীত March 20, 2010 
  3. C.Michael Hogan, Volubilis, Megalithic Portal, ed. A. Burnham (2007)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Abum-Nasr, Jamil M. (1987). A History of the Maghrib in the Islamic Period.
  • Pennell, C.R. (2000). Morocco Since 1830.
  • Milton, Giles (2004).White Gold: The Extraordinary True Story of Thomas Pellow and North Africa's One Million European Slaves.
  • Bakari Kamian. (2001). Des Tranchés de Verdun à l'église Saint Bernard.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]