আতাকামা লার্জ মিলিমিটার অ্যারে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

আতাকামা লার্জ মিলিমিটার অ্যারে (ইংরেজি ভাষায়: Atacama Large Millimeter Array) বা আলমা চিলির আতাকামা মরুভূমির কাইনান্তোর (Chajnantor) উপত্যকায় স্থাপিত একটি বেতার দুরবিন যা দিয়ে বিভিন্ন জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক বস্তু থেকে আসা মিলিমিটার ও সাবমিলিমিটার তরঙ্গদৈর্ঘ্যের বিকিরণ সনাক্ত করা সম্ভব। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে উপত্যকাটি প্রায় ৫ কিলোমিটার উচ্চতায় অবস্থিত। এটি ইউরোপ, উত্তর আমেরিকা, পূর্ব এশিয়া এবং স্বাগতিক দেশ চিলির যৌথ অংশগ্রহণে পরিচালিত একটি প্রকল্প। প্রাথমিকভাবে এতে ৬৬ টি খুবই সূক্ষ্ণ রিজল্যুশনের বেতার দুরবিন থাকবে যার সবগুলো দিয়ে একসাথে ব্যতিচারমিতিক (ইন্টারফেরোমেট্রি) প্রক্রিয়ায় একটি বস্তু পর্যবেক্ষণ করা যাবে। অধিকাংশ দুরবিনের এন্টেনার ব্যাসই ১২ মিটার, তবে কিছু ৭ মিটার ব্যাসের এন্টেনাও রয়েছে।[১]

সব মিলিয়ে দুরবিন অ্যারেটি নির্মাণে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি খরচ হবে। এখনও এর নির্মাণকাজ চলছে। তবে কিছু এন্টেনা দিয়ে ইতিমধ্যে প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ করা শুরু হয়ে গেছে। অ্যাস্ট্রোনমি অ্যান্ড অ্যাস্ট্রোফিজিক্স জার্নালের ফেব্রুয়ারি ২০১২ সংখ্যায় আলমা থেকে পাওয়া ফলাফল নিয়ে প্রথম কোন রেফারিড গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে। এই প্রথম প্রকাশের কৃতিত্ব চিলির তরুণ জ্যোতির্বিজ্ঞানী সিনথিয়া হেরেরা। এই গবেষণাপত্রে এন্টেনা ছায়াপথদ্বয়ের কার্বন মনোক্সাইড নিঃসরণের মানচিত্র প্রকাশিত হয়েছে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Atacama Large Millimeter Array এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট
  2. Jonathan Amos, "Chilean astronomer makes her mark", বিবিসি, ৩০ মার্চ ২০১২