অষ্টাঙ্গিক মার্গ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

অষ্টাঙ্গিক মার্গ
পালি: ariyo aṭṭhaṅgiko maggo
সংস্কৃত: आर्य आष्टांग मार्ग[১]
বর্মী: မဂ္ဂင်ရှစ်ပါး
(আইপিএ: [mɛʔɡɪ̀ɴ ʃɪʔ pá])
চীনা: 八正道
(pinyinBāzhèngdào)
জাপানী: 八正道
(rōmaji: Hasshōdō)
কোরীয়: 팔정도
(RR: Paljeongdo)
মঙ্গোলীয়: qutuγtan-u naiman gesigün-ü mör
থাই: อริยมรรคมีองค์แปด
Glossary of Buddhism
ধর্মচক্র, যা অষ্টাঙ্গিক মার্গ উপস্থাপন করতে ব্যবহৃত হয়।

অষ্টাঙ্গিক মার্গ গৌতম বুদ্ধ দ্বারা বর্ণিত দুঃখ নিরোধ মার্গ বা দুঃখ নিরসনের উপায়।[২] এটি বৌদ্ধধর্মের মূলকথা চতুরার্য সত্যের চতুর্থতম অংশ।

উৎপত্তি[সম্পাদনা]

থেরবাদ তিপিটক এবং মহাযানের আগমগুলিতে বলা হয়েছে যে, সিদ্ধার্থ গৌতম বুদ্ধত্ব প্রাপ্তির সময় অষ্টাঙ্গিক মার্গকে পুনরাবিষ্কার করেন। এই সূত্রগুলিতে উল্লিখিত আছে যে, গৌতম বুদ্ধের পূর্বেকার বুদ্ধরা অষ্টাঙ্গিক মার্গের চর্চা করেছেন এবং গৌতম বুদ্ধ এই শিক্ষা তাঁর শিষ্যদের দিয়ে গেছেন।[n ১]

বিভক্তি[সম্পাদনা]

অষ্টাঙ্গিক মার্গের আটটি উপদেশকে সম্যক প্রজ্ঞা, সম্যক শীল ও সম্যক সমাধি এই তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে।[৫][৬][৭]

বিভক্তি অষ্টাঙ্গিক মার্গ
সম্যক প্রজ্ঞা ১. সম্যক দৃষ্টি
২. সম্যক সঙ্কল্প
সম্যক শীল ৩. সম্যক বাক্য
৪. সম্যক কর্ম
৫. সম্যক জীবিকা
সম্যক সমাধি ৬. সম্যক প্রযত্ন
৭. সম্যক স্মৃতি
৮. সম্যক সমাধি

সম্যক প্রজ্ঞা[সম্পাদনা]

সম্যক প্রজ্ঞা দুই প্রকার- সম্যক দৃষ্টি ও সম্যক সঙ্কল্প। কায়িক, বাচনিক ও মানসিক কর্মের সঠিক জ্ঞানকে সম্যক দৃষ্টি বলে। অহিংসা, চুরি না করা, অব্যভিচার ও সত্যভাষণ হল কায়িক সুকর্ম, নিন্দা না করা, মধুর ভাষণ ও লোভহীনতা হল বাচনিক সুকর্ম এবং মিথ্যা ধারণা না করা ও প্রতিহিংসাপরায়ণ না হওয়া হল মানসিক সুকর্ম।[৮]

সম্যক শীল[সম্পাদনা]

সম্যক শীল তিন প্রকার- সম্যক বাক্য, সম্যক কর্ম ও সম্যক জীবিকা। মিথ্যা কথা, পরনিন্দা, কটুবাক্য ও অতিকথন ত্যাগ করে সত্যভাষণ ও মধুর বচনকে সম্যক বাক্য বলে। অহিংসা, চুরি না করা, অব্যভিচারকে সম্যক কর্ম এবং অসৎ পন্থা ত্যাগকে সম্যক জীবিকা বলে। গৌতম বুদ্ধ অস্ত্র ব্যবসা, প্রাণী ব্যবসা, মাংস বিক্রয় এবং মদ ও বিষের বানিজ্যকে মিথ্যা জীবিকা বলে উল্লেখ করেছেন।[৮]

সম্যক সমাধি[সম্পাদনা]

সম্যক সমাধি তিন প্রকার- সম্যক প্রযত্ন, সম্যক স্মৃতি ও সম্যক সমাধি। ব্যায়াম, ইন্দ্রিয় সংযম, কুচিন্তা ত্যাগ এবং সৎ চিন্তার চেষ্টা ও তাকে স্থায়ী করার চেষ্টাকে সম্যক প্রযত্ন বলে। কায়া, বেদনা, চিত্ত ও মনের ধর্মের সঠিক স্থিতিসমূহ ও তাদের ক্ষণবিধ্বংসী চরিত্রকে সদা স্মরণে রাখাকে সম্যক স্মৃতি এবং চিত্তের একাগ্রতাকে সম্যক সমাধি বলে।[৮]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. In the same way I saw an ancient path, an ancient road, traveled by the Rightly Self-awakened Ones of former times. And what is that ancient path, that ancient road, traveled by the Rightly Self-awakened Ones of former times? Just this noble eightfold path: right view, right aspiration, right speech, right action, right livelihood, right effort, right mindfulness, right concentration...I followed that path. Following it, I came to direct knowledge of aging & death, direct knowledge of the origination of aging & death, direct knowledge of the cessation of aging & death, direct knowledge of the path leading to the cessation of aging & death...Knowing that directly, I have revealed it to monks, nuns, male lay followers & female lay followers...[৩][৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Brekke, Torkel. "The Religious Motivation of the Early Buddhists." Journal of the American Academy of Religion, Vol. 67, No. 4 (Dec., 1999), p. 860
  2. Thanissaro Bhikkhu। "Dhammacakkappavattana Sutta"। Access to Insight। সংগৃহীত 2008-05-06 
  3. Thanissaro Bhikkhu। "Nagara Sutta"। Access to Insight। সংগৃহীত 2008-05-06 
  4. "Samyukta Agama, sutra no. 287, Taisho vol 2, page 80"। সংগৃহীত 2008-10-27  |[publisher= প্যারামিটার অজানা, উপেক্ষা করুন (সাহায্য)
  5. Allan (2008).
  6. "Culavedalla S" 
  7. Bhikkhu Bodhi। "The Noble Eightfold Path: The Way to the End of Suffering"। Access to Insight। সংগৃহীত 2010-07-10 
  8. ৮.০ ৮.১ ৮.২ দর্শন দিগদর্শন- রাহুল সাংকৃত্যায়ন, অনুবাদ ছন্দা চট্টোপাধ্যায়, প্রথম প্রকাশ জুলাই, সেপ্টেম্বর ১৯৮৮, চিরায়ত প্রকাশন প্রাইভেট লিমিটেড, ১২, বঙ্কিম চ্যাটার্জী স্ট্রীট, কলিকাতা - ৭৩

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]